আজ : রবিবার, ২৪শে জুন, ২০১৭ ইং | ১১ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

অধিভুক্ত হলেও সাত সরকারি কলেজের দায়িত্ব বুঝে নেয়নি ঢাবি

সময় : ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ০৯ এপ্রিল, ২০১৭


এবি সিদ্দিক: অধিভুক্ত হলেও সাত সরকারি কলেজের দায়িত্ব বুঝে নেয়নি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষ। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর বিষয়ের একাডেমিক কার্যক্রম নিয়ে কোনো নির্দেশনা দেয়নি। অন্যদিকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের আগামী ১৭ এপ্রিল থেকে মাস্টার্স শেষ পর্বের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এসে সাত সরকারি কলেজে স্নাতকোত্তর শ্রেণিতে অধ্যয়নরত প্রায় ৫০ হাজার শক্ষার্থী নতুন অনিশ্চয়তায় পড়েছেন।
১৬ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ এবং সরকারি তিতুমীর কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্তির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ওই দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে কলেজগুলোর অধ্যক্ষদের বৈঠকে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়। এর মাধ্যমে এসব কলেজের ভর্তি প্রক্রিয়া এবং সব পরীক্ষা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশনা ও ব্যবস্থাপনা অনুসারে পরিচালিত হবে। পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যসূচি নির্ধারণ, সিলেবাস প্রণয়ন, ভর্তি কার্যক্রম, পরীক্ষা পদ্ধতি নির্ধারণ, সনদ প্রদানসহ যাবতীয় একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনা করবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
জানা গেছে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা এসব সরকারি কলেজের একাডেমিক কার্যক্রম হস্তান্তর না হওয়ায় জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে ১ এপ্রিল সাত সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ এবং কয়েক সিনিয়র অধ্যাপক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সঙ্গে সাক্ষাত করেন। ওই বৈঠকে কলেজের বিদ্যমান সমস্যা, ঢাবি কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব বুঝে না নেয়া প্রসঙ্গ তুলে ধরা হয়। তবে এখনো নতুন অধিভুক্ত কলেজের দায়িত্ব নেয়ার জন্য প্রশাসনিক ও দাফতরিক কার্যক্রম শুরু করা হয়নি।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত দেড় মাসেও ঢাবির কর্তৃপক্ষ সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের একাডেমিক তথ্য-উপাত্ত বুঝে নেয়নি। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে কোনো চাহিদাপত্রও পাঠায়নি।
এ প্রসঙ্গে সরকারি কবি নজরুল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আই কে সেলিম উল্লাহ খন্দকার বলেন, শিগগিরই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একাডেমিক নির্দেশনা দেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। সমস্যাগুলো পর্যায়ক্রমে সমাধান করা হবে। বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির সভাপতি সেলিম উল্লাহ খন্দকার আরো জানান, উচ্চশিক্ষায় কোনো স্তরেই ভর্তি পরীক্ষা ছাড়া কাউকে ভর্তি করা হবে না। এর জন্য সময় হয়তো একটু বেশি লাগবে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, সাত সরকারি কলেজের অধিভুক্তির পরবর্তী একাডেমিক কার্যক্রম দ্রুত শুরু হবে। এ নিয়ে অনিশ্চয়তা বা হতাশার কিছু নেই।

Top