আজ : সোমবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

অন্তঃসত্ত্বাকে ফেরাল হাসপাতাল, গাছের নিচেই জন্মাল সন্তান

সময় : ৬:৩১ অপরাহ্ণ , তারিখ : ২১ মে, ২০১৭


আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

শববাহী যান বা অ্যাম্বুল্যান্স না মেলায় আত্মীয়র কাঁধে মৃতদেহ তুলে নিয়ে আসার ঘটনা একাধিকবার শিরোনামে উঠে এসেছে৷ ফের হাসপাতালের বেদনাদায়ক কঙ্কালসার চেহারাটা ফুটে উঠল৷ এক অন্তঃসত্ত্বাকে ফিরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল হাসপাতালের বিরুদ্ধে৷ যার ফলে অসহায় গর্ভবতীকে গাছের নিচেই সন্তানের জন্ম দিতে হল৷ ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় হাসপাতাল চত্বরে৷

আপনার অজানা অন্তর্বাস ব্যবহারের এমন ১০টি সঠিক নিয়ম

এমনই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে ছত্তিশগড়ের বিলাসপুর জেলা হাসপাতালে৷ গত বুধবার সিরিগিটির বাসিন্দা মুসকান খান নামের অন্তঃসত্ত্বাকে চরম হেনস্তার মধ্যে দিয়ে সন্তানের জন্ম দিতে হল৷ স্বামী শহিদ মহম্মদ মারা গিয়েছেন মাস দুয়েক আগে৷ সেদিন প্রথমে স্থানীয় একটি প্রাইমারি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে তাঁকে নিয়ে যান প্রতিবেশীরা৷ সেখানেই চিকিৎসকরা তাঁকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন৷ কারণ তাঁর কাছে সোনোগ্রাফি রিপোর্ট ছিল না৷ সেই মতোই মুসকানকে নিয়ে যাওয়া হয় বিলাসপুর জেলা হাসপাতালে৷ প্রতিবেশীদের অভিযোগ, বেড খালি না থাকার কারণ দেখিয়ে ফিরিয়ে দেওয়া হয় তাঁকে৷ কিন্তু বাড়ি পর্যন্ত ফিরতে পারেননি তিনি৷ রাস্তায় হঠাৎই প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয় তাঁর৷ কোনও উপায় না দেখে অবশেষে একটি গাছের নিচেই সন্তানের জন্ম দেন তিনি৷ এমনকী গোটা রাত তাঁকে সেখানেই কাটাতে হয় বলে জানা গিয়েছে৷
সেক্সের উপকারিতা ও জরুরি কেন?

এরপরই ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে আসরে নামে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ৷ পরের দিন অ্যাম্বুল্যান্স পাঠিয়ে মা ও সন্তানকে হাসপাতালে আনা হয়৷ চিকিৎসক এসএস বাজপেয়ি জানিয়েছেন, দু’জনের অবস্থাই আপাতত স্থিতিশীল৷ গোটা ঘটনায় নার্স সীমা সিংকে সাসপেন্ড করা হয়েছে৷ এবং স্ত্রীরোগ বিভাগের প্রধান ডক্টর রমা ঘোষকে তাঁর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ বিলাসপুরের ডিসি নীহারিকা বরিক জানান, ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ এর জন্য একটি আলাদা কমিটিও গঠন করা হয়েছে৷

আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

Top