আজ : সোমবার, ২৫শে জুন, ২০১৭ ইং | ১২ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

কখন বুঝবেন ভালোবাসার কাছে ফিরে যাওয়া উচিত

সময় : ১০:১৪ অপরাহ্ণ , তারিখ : ২৭ মে, ২০১৭


ভালোবাসা কোনো দলিলে লেখা চুক্তিপত্র নয় যে আপনি কাউকে তার মাধ্যমে বেঁধে রাখবেন। তবে ভালোবাসা বেঁধে রাখার মন্ত্র আছে। আর সেই মন্ত্র হচ্ছে আপনার বিশ্বাস আর আপনার সুপ্ত ভালোবাসা। পৃথিবীতে ভালোবাসার চেয়ে শক্তিশালী কিছু যেমন নেই তেমনি এর মতো ধ্বংস করার ক্ষমতাও কারো নেই। একমাত্র ভালোবাসা পারে আপনার মনের মাঝে ফুল ফোটাতে আর তাকে যত্ন করে গাছে রূপান্তর করতে। তবে এর গোড়ায় জল হিসেবে আপনার ভালোবাসা অতি আবশ্যক। ভালোবাসা নিয়ে হাজার মানুষ যুগের পর যুগ ধরে নানা উক্তি আর ব্যখ্যা দিয়ে গিয়েছে। আর তা ভেঙে আবার নতুন করে নানা মতবাদ সৃষ্টিও হয়েছে। আবার ভালোবাসার মাঝে এসেছে অনেক কঠিন বাঁধা আর বিপত্তি। কয়েক বছরের ভালোবাসা যেখানে পায়নি তার প্রাপ্তি সেখানে কিছুদিনের পরিচয় করে নিয়েছে একে-অন্যের মনে বিশাল জায়গা।

ভালোবাসার ধরনটাই এমন। কখনো ভালো আবার কখনো কালো। ভালোবাসায় জীবন দেওয়া এবং নেওয়া দুটি বিষয়ই আছে, ঠিক একটি কয়েনের দুটি পিঠের মতো। ভালোবাসায় আছে নানা পরীক্ষা। এই পরীক্ষায় আবার যুক্ত হয় বিশাল সময়ের দূরত্ব। কখনো কাউকে কাছে পাবার আবার একেবারে হারিয়ে যাওয়ার জন্য। তবে যে সকালে পথ ভুলে বিকেলে ফিরে আসে তাকে সাদরে গ্রহণ করাই যায়। ভালোবাসার ক্ষেত্রেও ছোট ছোট এমন বিষয় নিয়ে অনেকে আলাদা হয়ে যায়। নিজেদের ইচ্ছা থাকলেও নিজেদের কারণেই কাছে আসা আর হয়ে ওঠে যা। সেখানে দুটি মানুষ বেঁচে থাকলেও মৃত্যু হয় ভালোবাসার। তবে দুটি চোখ যদি শুধু আপনার পথের দিকে চেয়ে বসে থাকে তবে তাকে জীবন থেকে সরিয়ে দেবেন না। তাকে কাছে টেনে নিন। কারণ মান অভিমান ভালোবাসার একটি অংশ।

আলাদা হওয়ার কারণ
কখনো কখনো কিছু ছোট ভুলের কারণে দুটি মানুষের মাঝে থাকা ভালোবাসার মৃত্যু হয়। হারিয়ে যায় তাদের ভালোবাসা। ঝগড়া কিংবা মনোমালিন্য সম্পর্কের আরেক অংশ। এটি ছাড়া আপনার সম্পর্ক মিষ্টি তো হবেই না আর একে অপরকে জানা হবে না। তাই সম্পর্ক ভেঙে গেলেও আবার ভাবুন। কেন আপনারা আলাদা। তার প্রতি থাকা তীব্র টান কি আপনাকে তার কাছে টেনে নিচ্ছে! তাহলে আবার ভেবে ভালোবাসাকে বাঁচিয়ে তুলুন।

কতদিন ধরে আলাদা
ভালোবাসার ক্ষেত্রে দূরত্বে থাকা যেমন কঠিন তার থেকেও বড় একটি চ্যালেঞ্জিং বিষয়। আর এই ভালোবাসার মাঝে যখন সম্পর্কের টানাপোড়েন চলে তখন খুব সহজে বেছে নেওয়া হয় আলাদা হয়ে যাওয়া। যদি আপনি তাকে সত্যি ভালোবেসে থাকেন তবে বেশিদিন মনে রাগ পুষে না রেখে সামনাসামনি কথা বলুন। যে ছোট ভুলটি সম্পর্কে দূরত্বের দিকে নিচ্ছে তাকেই সরিয়ে ফেলুন জীবন থেকে।

যোগাযোগ
একে অপরের সঙ্গে যখন ঝগড়া করেন তখন কার দোষ বেশি থাকতো আর কিভাবে তা নিজেরা সামলে নিতেন তা ভেবে দেখুন। যদি সম্পর্কে দীর্ঘদিন যোগাযোগ না থাকা সত্ত্বেও একইভাবে আপনারা একে অন্যকে সামাল দিতে পারেন তা হলে ধরে নিন আপনার আপনার পুরোনো ভালোবাসার কাছে আসলেই ফিরে যাওয়া উচিত।

আলাদা হওয়ার পরের আচরণ
আপনি যদি দেখেন আপনার চলে যাওয়ার আপনার ভালোবাসার মানুষটি খুশি আছে তবে তো সব সেখানেই শেষ। কিন্তু যদি তার ঠিক বিপরীত হয়! তাহলে তাকে একটু লক্ষ করুন। আপনাকে নিয়ে এখনো তার মনে কি মতবাদ। আপনাকে সে এখনো কি আগের মতোই ভালোবাসে! তবে তার কাছে আপনি ফিরে যান।

Top