আজ : রবিবার, ২০শে আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৫ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

কারা নিরাপত্তা আরও জোরদার হচ্ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সময় : ১:০১ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১৬ মে, ২০১৭


কারা নিরাপত্তা

বাংলাদেশে কারাবন্দির শ্রেণি বিন্যাস না থাকলেও অন্য অনেক দেশের চেয়ে এ দেশের কারাগারের ব্যবস্থাপনা উন্নত বলে দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান থান কামাল। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশে আগের চেয়ে কারা নিরাপত্তা জোরদার ও সার্বিক ব্যবস্থাপনা আরও উন্নত হয়েছে। আগামীতে শ্রেণি বিন্যাসের বিষয়টিও ভাবা হবে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর খিলক্ষেতের ‘হোটেল লা মেরিডিয়ান’ এ আয়োজিত ‘কারাগারের মধ্যে নিরাপত্তা এবং মানবিক চাহিদার ভারসাম্য’ শীর্ষক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী ও কারা অধিদফতরের আইজি প্রিজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালের যুদ্ধের পর থেকে আন্তর্জাতিক রেড ক্রস কমিটি (আইসিআরসি) বাংলাদেশে কাজ করছে। ২০০৬ সাল থেকে বাংলাদেশে তারা সক্রিয় কাজ শুরু করে। ২০১৪ সাল থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আইসিআরসি এর সঙ্গে কাজ করছে।

মন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে কারাবন্দিদের অধিকার, চাহিদা ও মানবিক বিষয়গুলোর ভারসাম্য রক্ষা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। অনেক দেশে কারাবন্দিদের শ্রেণি বিন্যাস করা হয়েছে। তবে বাংলাদেশে এখনো তা সম্ভব হয়নি। আগামীতে এ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় রয়েছে।

কারাগারের নিরাপত্তা বৃদ্ধির পাশাপাশি কারা ব্যবস্থাপনায় আমূল পরিবর্তন আনা হয়েছে। অন্যান্য দেশের সঙ্গে কারা তথ্য শেয়ারিং এর মাধ্যমে আমরা আমাদের কারা সেক্টরকে আরও উন্নত করবো।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে ৭৩ হাজার কারাবন্দি রয়েছেন। এর মধ্যে ৭৪ শতাংশই বিভিন্ন মামলায় শুনানির অপেক্ষায়। কারাবন্দিদের সঙ্গে মানবিক আচরণ করা ও কারা ব্যবস্থাপনায় উন্নতির ক্ষেত্রে বর্তমান সরকার অনেক বেশি দৃঢ়।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় জেলখানা স্থানান্তর করে কেরানীগঞ্জে নেয়া হয়েছে। পৃথিবীর আর কোনো দেশে এমন দৃষ্টান্ত নেই যে এক দিনে সাড়ে ৭ হাজার কারাবন্দিকে স্থানান্তর করা হয়েছে।

সচিব বলেন, কারাগারে বন্দির সংখ্যা কমিয়ে আনতে দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। সামনে এ প্রক্রিয়ায় গতি আনতে কম্পিউটারাইজড ব্যবস্থা চালু করা হবে। প্রচলিত কারা বিধির সংশোধন ও আন্তর্জাতিক মান দিতে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। অনুষ্ঠানে আগত অন্যান্য দেশের কারা কর্মকর্তাদের সঙ্গে চলতি অনুষ্ঠানের কারা সংশ্লিষ্ট তথ্য শেয়ারিং হবে। এ তথ্য আগামীতে কাজে আসবে বলেও জানান তিনি।

কারা অধিদফতরের আইজি প্রিজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন বলেন, প্রিজন ম্যানেজম্যান্ট তৃতীয় সম্মেলন ছিল শ্রীলঙ্কায়। সে সম্মেলনে উন্মুক্ত জেল নিয়ে আলোচনা হয়। কক্সবাজারের উখিয়াতে বাংলাদেশ সরকার উন্মুক্ত জেল নির্মাণে উদ্যোগ নিয়েছে। ইতোমধ্যে ভূমি অধিগ্রহণও শুরু হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রিজন্স ব্যবস্থাপনা একটি কমপ্লেক্স বিষয়। ওভার ক্লাউডিং অনেক ধরনের সমস্যা থাকে। অনেক বয়সের, একাধিক দেশের নারী ও পুরুষ বন্দী থাকে জেলখানায়। তাদের সঙ্গে একই রকম আচরণ দেয়া যায় না। বাংলাদেশের কারা ব্যবস্থাপনায় উন্নতিতে কারা কর্মকর্তাদের ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

Top