আজ : রবিবার, ২০শে আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৫ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

গরমে ব্রণর সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কী করবেন?

সময় : ৭:০৯ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ২৩ মার্চ, ২০১৭


ওয়েব ডেস্ক : গরমকাল তো প্রায় এসেই গেল। আর গরমকাল মানেই প্যাচপ্যাচে ঘাম। অবশ্য অপ্টিমাম বডি টেম্পারেচার মেনটেন করার জন্য ঘাম হওয়া খুব জরুরী। কিন্তু ঘামের মধ্যে যে ব্যাকটেরিয়া থাকে তার থেকে ত্বকের মুখ বন্ধ হয়ে যায়। তাই গরমের সময় অ্যাকনে ‚ Rash আর ব্রণ বেরোনো খুব সাধারণ ব্যাপার। এছাড়াও স্কিন ইনফেকশন হতে পারে যেমন চুলকানি‚ গোটা বেরোনো এবং ত্বক লাল হয়ে যাওয়া। গরম পড়ার আগেই তাই কয়েকটা টিপ্স দেওয়া হচ্ছে যা মেনে চললে অন্তত ওপরের সমস্যার হাত থেকে সুরক্ষা পাবেন।

১) দিনে অন্তত দু‘বার করে চান করুন : যদি পারেন দিনে তিনবার চান করলেও ক্ষতি নেই। মাথা না ভেজালেও চলবে অন্তত গা ধোয়ার চেষ্টা করুন। এইভাবে আপনার ত্বক পরিষ্কার থাকবে এবং ব্যাকটেরিয়াও জমা হতে পারবে না। একই সঙ্গে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল সাবান আর বডি ওয়াশ ব্যাবহার করুন।

২) নিয়মিত ত্বক এক্সফলিয়েট করুন : সারাদিন শরীর ঘামে ভিজে থাকলে গায়েও অ্যাকনে হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটা বেড়ে যায়। আমাদের শরীর থেকে প্রতিদিন কোটি কোটি মরা কোষ বেরোয়। আর এই মরা কোষ খাবার হিসেবে ব্যবহার করে মাইক্রো অর্গানিজমস। এর থেকে গায়ে গোটা বেরোতে পারে আবার অ্যাকনেও হতে পারে। তাছাড়াও ধুলো ময়লাও ত্বকেও ওপর জমা হয়‚ ফলে ত্বকের মুখ বন্ধ হয়ে যায়। তাই নিয়মিত এক্সফলিয়েশন করাটা খুব জরুরী। সপ্তাহে অন্তত তিনবার সারা শরীর স্ক্রাব করুন।

৩) ত্বক শুকনো রাখুন : আমাদের শরীরের কয়েকটা জায়গায় sweat gland বেশি পরিমাণে থাকে যেমন কপাল‚ genital area‚ পিঠ এবং বগল। তাই আপনি যদি অ্যাকনে বা body rash দূরে রাখতে চান তাহলে শরীরের এই জায়গাগুলো শুকনো রাখা অত্যন্ত জরুরী। চান করে ভালো করে শুকনো করে গা মুছুন। এছাড়াও ঘাম হলে কোন পরিষ্কার সুতির কাপড় দিয়ে গা মুছে নিন। মুখের জন্য ব্যবহার করুন ওয়েট টিস্যু। এছাড়াও গায়ে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল পাউডার লাগান। অত্যধিক ঘাম হওয়ার সমস্যা থাকলে অবশ্যই একজন স্কিনের ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

৪) লুজ ফিটিং‚ সুতির তৈরি পোশাক পরুন : লুজ ফিটিং এবং সুতির তৈরী পোশাক পরলে আপনার ত্বক শ্বাস নিতে পারবে। এছাড়াও ঘাম তাড়াতাড়ি শুকিয়েও যায় এই ধরণের পোশাক পরলে। আপনার শরীর আর পোশাকের মধ্যে যত ভালো হওয়া চলাচল করবে তত কম ব্যাকটেরিয়া জমা হবে ত্বকের ওপর। গায়ে ঘামের গন্ধও কম হবে। যাদের ঘরের বাইরে কাজ করতে হয় তাদের জন্য এটা মেনে চলা কিন্তু খুব জরুরী।

৫) যতটা পারবেন ভাজাভুজি আর জাঙ্ক খাবার এড়িয়ে চলুন : যে সব খাবারে ট্রান্স ফ্যাট থাকে এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট যুক্ত‚ সেসব খাবার এড়িয়ে চলুন। ভাজাভুজি‚ মশলাদার খাবার এবং যে খাবারে প্রচুর পরিমাণে চিনি থাকে সেই সব খাবার সহজে হজম করা যায় না। এর ফলে ব্রণ‚ সারা গায়ে গোটা বেরোতে পারে। এই সব খাবারের পরিবর্তে তাজা ফল এবং সব্জি খাওয়ার চেষ্টা করুন।

Top