আজ : শনিবার, ১৯শে আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

নোমান বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেট জেলা শাখার সহ-সভাপতি

সময় : ৩:১৫ অপরাহ্ণ , তারিখ : ২১ মার্চ, ২০১৭


সিলেট:নোমান বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেট জেলা শাখার সহ-সভাপতি গণ-মাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মী, এবং নর্থ ইষ্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ এর

উপাচার্য মহোদয়ের একান্ত সচিব মানবতাবাদী শাহ মনসুর আলী নোমান বাংলাদেশ

মানবাধিকার কমিশন (বা.মা.ক.) সিলেট জেলা শাখার সহ-সভাপতি মনোনীত হয়েছেন।

তিনি সততা, দক্ষতা ও নি:স্বার্থভাবে গণ-মানুষের কল্যাণে নিবেদিত থাকায় জেলা

কমিটির সুপারিশক্রমে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন (বা.মা.ক.) কেন্দ্রীয় সদর দপ্তর,

ঢাকা কর্তৃক নোমানকে সিলেট জেলা শাখার সহ-সভাপতি পদে অনুমোদন প্রদান করা

হয়।

শাহ মনসুর আলী নোমান তাঁর স্কুল জীবন থেকে গণ-মাধ্যমে বিভিন্ন সমস্যা-

সম্ভাবনা, ইতিহাস-ঐতিহ্য, শিক্ষা-উন্নয়ন, ইত্যাদি বিষয়ে প্রতিবেদন লিখে

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি আনয়নে প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। তাঁর বিভিন্ন

প্রতিবেদনের আলোকে এবং প্রচেষ্টায় এল.জি.ই.ডি’র উদ্যোগে ব্রীজ নির্মাণ,

রাস্তাঘাট সংস্কার ও নবীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুর্গত এলাকায় খয়রাতি

সাহায্য ও ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করা হয়।

সম্প্রতি শাহ মনসুর আলী নোমান কর্তৃক হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার

‘কাজিরবাজার ব্রীজে গর্ত প্রাণনাশের আশঙ্কা’ শিরোনামের সচিত্র প্রতিবেদনটি

বিভিন্ন স্থানীয়, জাতীয় সংবাদপত্র, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সামাজিক মাধ্যমে

প্রকাশিত হলে নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাজিনা সারওয়ার জানান

বিষয়টি তিনি অবগত হওয়ার পর নবীগঞ্জ এল.জি.ই.ডি’র উপজেলা প্রকৌশলীকে

জানানো হলে উপজেলা প্রকৌশলী সরেজমিনে পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পান এবং

দ্রুত গতিতে ব্রীজটি সংস্কার ও মেরামত কার্যক্রম সম্পন্ন হয়।

হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক এলাকায় কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গন সংক্রান্ত

প্রতিবেদন শাহ মনসুর আলী নোমান কর্তৃক দেশের জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্রিকায়

প্রকাশিত হলে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাজিনা সারওয়ার ও হবিগঞ্জ পানি

উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাবৃন্দ সরেজমিনে পরিদর্শন করেন এবং দীঘলবাককে

কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গন থেকে রক্ষাকল্পে একটি প্রকল্প বর্তমানে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ে

প্রক্রিয়াধীন।

‘পত্রিকায় শুধু অপরাধীর ছবি প্রকাশ করা উচিত’ শিরোনামে লেখা’র জন্য শাহ মনসুর

আলী নোমান জাতীয় দৈনিক ভোরের কাগজ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক পুরস্কৃত ও অভিনন্দিত হন

এবং ‘কুশিয়ারার ভাঙ্গন রোধ করুন’ শিরোনামের লেখাটি জাতীয় সাপ্তাহিক ‘এই

সময়’ পত্রিকায় প্রকাশিত হলে তা সেরা লেখা হিসেবে মনোনয়ন লাভ করে এবং পুরস্কারের

জন্য ঘোষিত হয়।

নোমানকে সমাজসেবায় বলিষ্ট অবদান রাখায় উদার দিগন্ত সাহিত্য সংসদ ও পাঠাগার

(বৈদ্য শাসন, মৌলভীবাজার) আয়োজিত কীর্তিমান ও গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে

সম্মাননা (রেডিয়েন্ট এ্যাওয়ার্ড) প্রদান করেন বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব শ্রী

বনমালী ভৌমিক (ডিজি আইসিটি বিভাগ)। বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেট

জেলা ও মহানগর শাখার উদ্যোগে জাতিসংঘ ঘোষিত বিশ্ব শান্তি দিবস উপলক্ষে

মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক

মোঃ শহিদুল হক চৌধুরী- নোমানকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন। তরুণ সমাজের

উন্নয়নে অবদান রাখায় জাতীয় যুব দিবসে (২০১৬) বাংলাদেশ জাতীয় যুব উন্নয়ন

পরিষদের উদ্যোগে এক অনুষ্ঠানে তিনি সংবর্ধিত ও সম্মাননা লাভ করেন।

রাষ্ট্রবিজ্ঞানে ¯œাতকোত্তর ডিগ্রীধারী শাহ মনসুর আলী নোমান নর্থ ইষ্ট

ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের উপাচার্যের একান্ত সচিব হিসেবে কর্মরত। তিনি

সম্প্রতি সিলেট মেট্রোপলিটন ল’ কলেজ থেকে (জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে)

এলএল.বি পার্ট-১ (২০১৫) পরীক্ষায় ২য় শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হন এবং বর্তমানে তিনি

এলএল.বি চূড়ান্ত বর্ষে অধ্যয়নরত। তিনি দৈনিক খবর বাংলাদেশ, বিশ্ববিদ্যালয় পরিক্রমা ও

মানবাধিকার পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি, কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ (সিলেট),

রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি (সিলেট), নবীগঞ্জ কল্যাণ সমিতি (সিলেট) এর আজীবন

সদস্য সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ও কর্মকান্ডের সহিত সম্পৃক্ত।

হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী দীঘলবাক উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের

একাধিকবার নির্বাচিত জনপ্রিয় চেয়ারম্যান , বিশিষ্ট সমাজসেবী ও শিক্ষানুরাগী

আলহাজ্ব শাহ আশ্রব আলী ; শাহ মনসুর আলী নোমানের পিতা। মূলত: তিনি পিতার

আদর্শ ও সমাজসেবামূলক কর্মকান্ডে উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত হয়ে সমাজসেবামূলক

বিভিন্ন কর্মকান্ডে নিজেকে আত্মনিয়োগ রেখেছেন।

Top