আজ : মঙ্গলবার, ২৭শে জুন, ২০১৭ ইং | ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

পরাজয়ের সঙ্গে লজ্জাও সঙ্গী ভারতের

সময় : ৪:১৪ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ১৯ জুন, ২০১৭


শুধু আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিই নয়, আইসিসির যে কোনো টুর্নামেন্টের কোনো ফাইনালেই এতবড় পরাজয়ের লজ্জায় পড়েনি কেউ। যে লজ্জায় আজ পড়লো ভারত। বিশাল ব্যাটিং শক্তির দল বিরাট কোহলিরা। পুরো টুর্নামেন্টের ফাইনালে ভারতের মত এত সলিড ব্যাটিং আর কারও ছিল না। এক কথায় ব্যাটিং পাওয়ার হাউজ।

অথচ এই ব্যাটিং পাওয়ার হাউজই কি না ফাইনালের মত গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে এসে ‍পুরোপুরি বিধ্বস্ত। অলআউট হয়ে গেলো মাত্র ১৫৮ রানে। যার ফলে ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে বিধ্বস্ত হতে হলো ১৮০ রানের বিশাল ব্যবধানে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি কিংবা বিশ্বকাপ- আইসিসির যে কোনো টুর্নামেন্টেই এতবড় ব্যবধানে হারেনি আর কোনো দল।

আইসিসির বড় কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনালে বড় দুটি লজ্জার হারে জড়িয়ে রয়েছে ভারতের নাম। এবার তারা হারলো পাকিস্তানের কাছে, ১৮০ রানের ব্যবধানে। এর আগে সবচেয়ে বড় লজ্জার হারের রেকর্ড ছিল, ২০০৩ বিশ্বকাপের ফাইনাল। সেবার অস্ট্রেলিয়ার ৩৫৯ রানের জবাব দিতে নেমে ভারত হেরেছিল ১২৫ রানে। ভারত অলআউট হয়েছিল ২৩৪ রানে।

ভারতের পর আইসিসির কোনো ইভেন্টের ফাইনালে সবচেয়ে বড় হারের রেকর্ড ইংল্যান্ডের। ১৯৭৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে তারা ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হেরেছিল ৯২ রানে।

যে কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনাল হিসেব করলে ভারতের এই হার পঞ্চম সর্বোচ্চ ব্যবধানে। সবচেয়ে বেশি ব্যবধানে ফাইনালের হারের লজ্জাও ভারতের। ২০০০ সালে কোকাকোলা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে তারা হেরেছিল ২৪৫ রানের ব্যবধানে। লঙ্কানদের ২৯৯ রানের জবাব দিতে নেমে গাঙ্গুলি-শচীনরা অলআউট হয়েছিল মাত্র ৫৪ রানে।

২০০৪ সালে বিভি সিরিজের দ্বিতীয় ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ২০৮ রানের লজ্জায় পুড়েছিল ভারত। অস্ট্রেলিয়ার করা ৩৫৯ রানের জবাবে ভারতের ব্যাটিং পাওয়ার হাউজ অলআউট হয়েছিল ১৫১ রানে।

এবারের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পরিসংখ্যান ঘাঁটলে দেখা যাবে সেরা দুই রান সংগ্রহকারী ব্যাটসম্যানই ভারতের। দুই ওপেনার রোহিত শর্মা এবং শিখল ধাওয়ান। সেই জুটিই কি না পাকিস্তানের বিপক্ষে হাইভোল্টেজ ফাইনালে এসে পুরোপুরি ব্যর্থ। রোহিত শর্মা মারলেন গোল্ডেন ডাক এবং শিখর ধাওয়ান আউট হলেন ২১ রানে। বিরাট কোহলি বিদায় নিলেন ৫ রান করেই। যুবরাজ-ধোনিরা আউট হলেন খুব দ্রুত।

হার্দিক পান্ডিয়া ভালো সুযোগ সৃষ্টি করেছিলেন। চেষ্টা করেছিলেন ভারতকে জেতানোর। কিন্তু তার একার লড়াই ধোপে টিকলো না। ৪৩ বলে ৭৬ রানের ইনিংস শুধু আক্ষেপই বাড়িয়েছে।

পাকিস্তান আবার এ ক্ষেত্রে একটা রেকর্ড গড়েছে। এই ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৩৩৮ রান। যে কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনালে এই রান তাদের সর্বোচ্চ। আর ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। আগেরটা ৩৪৪ রানের। যদিও সেটা ছিল ৩৫০ রান তাড়া করতে নেমে।

Top