আজ : সোমবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

পাপের পাহাড়ে আজ আগুন লেগেছে। ধোঁয়া উড়ছে। উড়বেই তো। পাপ কি কখনো চাপা থাকে?

সময় : ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ১৮ মে, ২০১৭


আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

এবি সিদ্দিক:গণমাধ্যমের কল্যাণে বনানীর ঘটনা আজ আর কারো অজানা নেই। যা অজানা তা হলো, এই ঘটনার জল শেষ পর্যন্ত কতো দূর গড়াবে।ঘটনার উল্লেখ বাহুল্য হলেও আলোচনার সুবিধার্থে সূত্র ধরিয়ে দিতে হয়। বেসরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ এনে গত ৬ মে বনানী থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২৮ মার্চ পূর্বপরিচিত সাফাত আহমেদ ও নাঈম আশরাফ ওই শিক্ষার্থীদের জন্মদিনের অনুষ্ঠানের দাওয়াত দিয়ে বনানীর দ্য রেইনট্রি হোটেলে নিয়ে যায়। দুই তরুণীকে হোটেলের একটি কক্ষে আটকে রেখে মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে ধর্ষণ করে সাফাত ও নাঈম। বিষয়টি কাউকে জানালে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকি দিয়ে পরে দুই শিক্ষার্থীকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয় ধর্ষকরা। ভীতসন্ত্রস্ত দুই তরুণী প্রথমে বিষয়টি কাউকে না জানালেও পরে পরিবারের সঙ্গে কথা বলে মামলা করার সিদ্ধান্ত নেন।

সিদ্ধান্ত নিলেও মামলা করাটা তাদের জন্য সহজ হয়নি। গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী মামলা করতে গিয়ে তরুণীরা জনৈক পুলিশ কর্মকর্তার যে ধরনের “জিজ্ঞাসাবাদের” মুখে পড়েন, তা ওই তরুণীদের ভাষায় ধর্ষিত হওয়ার চাইতে কিছুমাত্র কম ছিল না।আমাদের বিনীত জিজ্ঞাসা, এই-ই কি পুলিশের কাজ? দ্বিতীয় এই অবমাননার কি কোনো বিচার হবে?

এবার অন্য প্রসঙ্গ। ঘটনা ফাঁস হওয়ার পর গণমাধ্যমে ঝড় উঠলে এক পর্যায়ে মুখ খোলেন অভিযুক্ত এক ধর্ষকের সোনা-ব্যবসায়ী পিতাঠাকুর। এই মহামহিমের বয়ান আরো চিত্তহারী। তিনি কোনো রকম মনঃপীড়ায় না ভুগে উল্টো বুক চিতিয়ে বলেন, যা কিছু হয়েছে বোঝাপড়ার মাধ্যমেই হয়েছে।এবার আমাদের দ্বিতীয় জিজ্ঞাসা, এ ধরনের “বোঝাপড়া” কি বাংলাদেশের আইনে বৈধ, কোন আইনে?

আমাদের ভাবতে সত্যিই “ভালো” লাগছে যে, সমাজ এগিয়ে যাচ্ছে। পুত্র ধর্ষণ করবে আর পিতাজী পুত্রের পক্ষে না দাঁড়ালে এত রাশি রাশি টাকার কি মূল্য তবে?আসলে টাকার মূল্য বা গরমই আলাদা। টাকায় কী না হয়, টাকা কী না করতে পারে?

সত্যি বটে, টাকা অনেক কিছু পারে, তবে সবকিছু নয়। টাকার গরমে অন্ধ হয়ে ওরা দু’তরুণীর জীবন তছনছ করে দিয়েছে। হুমকি দিয়েছে ঘটনা প্রকাশ হলে খুন ও লাশ গুমের। এরকম অপকর্ম নিশ্চয়ই এটাই ওদের প্রথম নয়। জানতে ইচ্ছা হয়, ওদের পরিবার কি এতোদিন কিছুই টের পায়নি? তারা বখে যাওয়া পুত্রধনকে সুপথে আনার কোনো ব্যবস্থা নিয়েছিল কি?অনুমান করি, নেয়নি। অথবা নিলেও তা মোটেই যথেষ্ট ছিল না।

কেন নেয়নি? কারণ, এসব করার মতো সময় তাদের হাতে ছিল না।

কী এতো কাজ তাদের? কেন, টাকা উপার্জন!টাকার পেছনে ছুটেছে তারা। সে এমন ছোটা যে দারাপুত্রপরিবার – কোনো দিকে মনোযোগ দেয়ার ফুরসৎমাত্র মেলেনি। তাতে টাকার পাহাড় জমেছে সত্য, পাশাপাশি নীরবে গোপনে জমেছে পাপেরও পাহাড়।সেই পাহাড়ে আজ আগুন লেগেছে। ধোঁয়া উড়ছে। উড়বেই তো। পাপ কি কখনো চাপা থাকে?

পাপ চাপা থাকে না। পাপ বাপকেও ছাড়ে না। অঢেল টাকাও পাপকে চাপা দিয়ে রাখতে পারে না – এই অমোঘ সত্যটি একটিমাত্র ঘটনার মধ্য দিয়ে আমাদের সামনে নতুন করে উদ্ভাসিত হলো।

আমরা কি এ থেকে কোনো শিক্ষা নেব?

এবি সিদ্দিক লেখক সাংবাদিক

আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

Top