আজ : মঙ্গলবার, ২৩শে মে, ২০১৭ ইং | ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ৪ সন্ত্রাসী নিহত, ৬ পুলিশ আহত

সময় : ৪:২৯ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ১৪ মার্চ, ২০১৭


মেহেরপুার প্রতিনিধি: মেহেরপুর নুরপুরে পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ৪ সন্ত্রাসী নিহত

হয়েছে। সোমবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে এ বন্দুক যুদ্ধের ঘটনাটি ঘটে। নিহত

সন্ত্রাসীরা হচ্ছে- মেহেরপুর সদর উপজেলার সোনাপুর গ্রামের ভাদু ম-লের ছেলে সাদ্দাম হোসেন

(২৫), রসময় কর্মকারের ছেলে রমেশ (২৪), টঙ্গি গ্রামের মনিরুলের ছেলে সোহাগ (২৭) ও

পিরোজপুরের কালামের ছেলে কানন (২৫)।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি কাটা রাইফেল, একটি রিভলবার, ৬টি বোমা ও বেশ কয়েকটি দেশীয়

ধারালো অস্ত্র ও সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত গুলির খোসা উদ্ধার করে। নিহতরা সোনাপুর গ্রামে জোড়া

খুন হত্যা মামলার আসামী বলে জানিয়েছে পুলিশ। এদিকে বন্দুক যুদ্ধের সময় আহত হয়েছেন

সহকারি পুলিশ সুপার আহসান হাবীবসহ ৬ পুলিশ । আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া

হয়েছে।

মেহেরপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জানান, সোমবার রাত আড়াইটার দিকে

সন্ত্রাসীরা নুরপুর মোড়ে অবস্থান করছে বলে সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি দল সেখানে যায়।

এসময় পুলিশ তাদের ধাওয়া করলে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি

চালায়। শুরু হয় বন্দুক যুদ্ধ। ঘন্টা ব্যাপি এ বন্দুক যুদ্ধ শেষে সন্ত্রাসীরা পিছু হটে। ঘটনাস্থলে

পুলিশ ৪জনের গুলিবিদ্ধ লাশ পড়ে থাকতে দেখে। পরে স্থানীয় লোকজন নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করে।

নিহতরা সোনাপুর গ্রামের ব্যবসায়ি মজিদ ও আসাদুল হত্যার আসামী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালর মর্গে রাখা হয়েছে।

এদিকে বন্দুক যুদ্ধের সময় সহকারী পুলিশ সুপার আহসমান হাবীব সহ ৬ পুলিশ সদস্য আহত

হয়। আহতদের মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। মেহেরপুর

জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আবু এহসান রাজু জানান, রাত পনে ৪ টার

দিকে গুলিবিদ্ধ ৪ জনকে হাসপাতালে নিয়ে আসে পুলিশ। হাসপাতালে আসার আগেই তাদের

মৃত্যু হয়েছে।

Top