আজ : শনিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী বঙ্গমাতাকে ভুলে গেলেন বরিশাল আওয়ামীলীগ

সময় : ২:৫৮ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১৪ আগস্ট, ২০১৭


আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

এম.এস.আই লিমনঃ রাষ্ট্রীয় ভাবে যথাযথ মর্যাদায় বঙ্গমাতার জন্ম বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। তবে ব্যতিক্রমী ঘটনা ঘটেছে বরিশাল আওয়ামীলীগে। দিবসটি উপলক্ষে জেলা কিংবা মহানগর তথা তার অঙ্গ সংগঠন থেকে নেয়া হয়নি কোন কর্মসূচী। এ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে দ্বিধাবিভক্ত বক্তব্য দেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দ। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ খোদ সাবেক আওয়ামীলীগ নেতাদের মাঝে। সৃষ্টি হয়েছে আলোচনা ও সমালোচনার। জানা যায়, গতকাল ৮ আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহ ধর্মীনি বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে রাষ্ট্রীয় ভাবে দেশব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়। কিন্তু অভিযোগ রয়েছে এখানকার শাসক দল থেকে কোন কর্মসূচী গ্রহণ করেনি। এ বিষয়ে বরিশাল মহানগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. এ.কে.এম জাহাঙ্গীরের সাথে গতকাল রাত ৮টা ৪০ মিনিটে ব্যক্তিগত মুঠোফোনে কথা বললে তিনি বলেন, বিগত দিন থেকে আ’লীগ সংগঠনের সাথে যুক্ত রয়েছেন। বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকীতে কোন কর্মসূচী দোয়া মাহফিল করেনি মহানগর আ’লীগ। তাদের বিষয় তাদের ভাবতে দিতেও বলেন তিনি। অপর দিকে সাবেক বরিশাল মহানগর আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করিম জানায়, তিনি সংগঠনের দায়িত্বে থাকাকালীন সকল দিবসই যথাযথ সম্মান পূর্বক পালন করেছিল। বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী রাষ্ট্রীয় ভাবে যেখানে পালন করা হচ্ছে সেখানে আ’লীগ সংগঠনের পালন করাটা সাংগঠনিক ভাবেই হয়ে আসছে বিগত দিন থেকে। তবে বরিশাল মহানগর আ’লীগের নতুন নেতৃবৃন্দ কোন কর্মসূচী গ্রহণ করার বিষয়ে মতামত দিতে রাজি হয়নি। অপর দিকে সম্প্রতি বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে আ’লীগ পন্থীরা বঙ্গবন্ধুর নামে সংগঠন বঙ্গবন্ধু পেশাজীবি পরিষদ নামের সংগঠন ৩ বছর হবার পূর্বে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ঠাকঢোল পিটিয়ে কয়েক লক্ষ টাকা ব্যয় করে রঙিন ব্যানার ফেস্টুন মুড়ে আলোক সজ্জায় সজ্জিত করে অনুষ্ঠিত হলেও শোকের মাসের ৮দিন অতিবাহিত হলেও শোকাবহ কোন ব্যানারে শোক প্রকাশ করেনি সংগঠনের ব্যানারে। গতকাল বঙ্গমাতার জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে কোন কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে কিনা এ বিষয়ে বিসিসি’র বঙ্গবন্ধু পেশাজীবি পরিষদের সহ-সভাপতি ভেটেনারী সার্জন ডাঃ মোঃ রবিউল ইসরাম, সাংগঠনিক সম্পাদক উপ-সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) মো. মাহাবুবুর রহমান নিপু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সমাজ উদ্ভাস্ত কর্মকর্তা মো. রাসের খাঁন, দপ্তর সম্পাদক উপ-সহকারী প্রকৌশলী (যান্ত্রীক) কমল কৃষ্ণ দাস তারা জানেই না গতকাল বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকীর কথা। সংগঠনের সভাপতি সাবেক মেয়র কেন্দ্রীয় বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাড. মজিবুর রহমান সরোয়ারের তৎকালীন ক্ষমতামলে নিয়োগ প্রাপ্ত নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আনিসুজ্জামানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি মুঠোফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। সাধরণ সম্পাদক বিসিসি’র পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা দীপক লাল মৃধার ফোনে ফোন করা হলে তা বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে সংগঠনের নেতা বনে ব্যক্তি স্বার্থ হাসিলের জন্য সম্মেলনে লক্ষাধিক টাকা ব্যয় করে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। কিন্তু যার নামে সংগঠন সে সংশ্লিষ্ট কোন দিবস এখন পর্যন্ত পালন না করায় প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে রয়েছে সাংগঠনটি। তবে সাংগঠনিক সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান নিপু জানায়, তারা শোক দিবস উপলক্ষ্যে ৪ দিনের কর্মসূচী গ্রহণ করেছে ১২ আগষ্ট থেকে। এ বিষয়ে সাবেক বরিশাল মহানগর আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করীমের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানায়, এটা খুবই লজ্জা জনক। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে সংগঠনের নেতা হয়ে সাংগঠনিক নির্দেশনার অনুকরণ না করায়। তিনি মন্তব্য করে আরো বলেন, বঙ্গমাতার নামে রাষ্ট্রীয় ভাবে ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। জন্ম বার্ষিকীতে দলীয় সভানেত্রী সংগঠনের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল করে আসার ন্যায় সাংগঠনিক ভাবে সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন দিবস যথাযথ সম্মান পূর্বক পালন করে আসছে বরিশাল মহানগর আ’লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠন গুলো। তবে বিসিসি’র এ সংগঠনের কতিপয়রা জিয়া পরিষদ সংগঠন করতো বলেও জানান তিনি।

আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

Top