আজ : মঙ্গলবার, ২৭শে জুন, ২০১৭ ইং | ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বৈশাখী অনুষ্ঠানে গাইলেন প্রধানমন্ত্রী

সময় : ১১:৫৯ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১৪ এপ্রিল, ২০১৭


রাষ্ট্র পরিচালনা করেন, তাতে কি? অাবেগ তো কোনো নিয়মের সীমানায় অাটকে রাখা যায় না। ছেলের জন্মদিনে নিজে রান্না করে খাইয়েছিলেন। গ্রামে বেড়াতে গিয়ে ভ্যান গাড়িতে চড়ে ছিলেন।

শত ব্যস্ততা অার নিরাপত্তার মধ্যেও মাঝে মাঝেই এমন তাক লাগানো ঘটনার জন্ম দেন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যা সাধারণ মানুষকে অারো কাছে রাখার অনুপ্রেরণা জোগায়।

অাজ শুক্রবার তেমনই এক তাক লাগানো ঘটনার অবতারণা করেন প্রধানমন্ত্রী। গাইলেন বৈশাখের গান। একেবারেই প্রাণের উচ্ছ্বাসে বৈশাখী ঢংয়ে।

পহেলা বৈশাখ উদযাপন হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেও। আয়োজন করা হয় নাচ-গানের।

শিল্পীদের পরিবেশন করা গানের সময় তাদের সঙ্গে মঞ্চে দাঁড়িয়ে কণ্ঠ মেলান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। শুক্রবার সকালে গণভবনে আয়োজিত নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে মঞ্চে দাঁড়িয়ে গান ও নৃত্য উপভোগ করেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় তিনি এতটাই উচ্ছ্বসিত ছিলেন যে, সেখানে পরিবেশন করা ঐতিহ্যবাহী লোকসঙ্গীত, দেশাত্মবোধক গান, রবীন্দ্র, নজরুল সঙ্গীতসহ প্রায় সব গানেই কণ্ঠ মিলিয়েছেন তিনি। তার গান গাওয়া দেখে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরীসহ অন্যারা কণ্ঠ মেলান।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিখ্যাত গান ‘এসো হে বৈশাখ’ গানটি পরিবেশন করেন শিল্পী সুবীর নন্দী, লাইলী ইসলাম, শামা রহমানসহ অন্য শিল্পীরা। দেখা গেছে, শিল্পীদের গাওয়া এই গানটি মঞ্চে দাঁড়িয়ে খুব উচ্চ স্বরে গেয়েছেন শেখ হাসিনাও।

এদিন সুবীর নন্দী, লাইলী ইসলাম, শামা রহমান, দিনাত জাহান মুন্নি, শবনম শিউলি, ফকির মন্ডল, সামিনা হোসেন এমাসহ প্রখ্যাত শিল্পীরা গান পরিবেশন করেন গণভবনে। এ সময় বাংলার সমৃদ্ধ সংস্কৃতি তুলে ধরে নৃত্য পরিবেশন করা হয়।

শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন সামনের প্যান্ডেলে আসেন প্রধানমন্ত্রী। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা প্রধানমন্ত্রীকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। প্রায় সোয়া এক ঘণ্টা সবার সঙ্গে বৈশাখের আনন্দ ভাগাভাগি করে ঘরে ফেরেন শেখ হাসিনা।

আওয়ামী লীগ নেতাদের রবীন্দ্রনাথের ‘আনন্দলোকে মঙ্গল আলোকে’ গানটি গাওয়ার মধ্যে দিয়ে শেষ হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বৈশাখ উপলক্ষে অতিথিদের ঐতিহ্যবাহী খাবার মোয়া, মুড়কি, মুরালি, কদমা, জিলাপিসহ বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি পরিবেশন করা হয়।

এ অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, মতিয়া চৌধুরী, ওবায়দুল কাদের, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, সাহারা খাতুন, ফারুক খান, আব্দুর রাজ্জাক, মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, আহমদ হোসেন, আফম বাহাউদ্দিন নাছিম, আবদুল মতিন খসরু, হাছান মাহমুদ, সুজিত রায় নন্দী, আমিনুল ইসলাম আমিনসহ সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Top