আজ : বৃহস্পতিবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৯ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

মাশরাফির পর মাহমুদউল্লাহর ফিফটি

সময় : ১২:৫৮ অপরাহ্ণ , তারিখ : ২২ মার্চ, ২০১৭


২৩৯ রানে ৭ উইকেটের পতন। ঘোর বিপদই বলা চলে। জয় থেকে ১১১ রান দূরে ছিল বাংলাদেশ। খাদের কিনার থেকে বাংলাদেশকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যান মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন মাশরাফি। দায়িত্বশীল ব্যাট করছেন মাহমুদউল্লাহ। মাশরাফি-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে জয় দেখছে বাংলাদেশ।

২৮ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেন মাশরাফি। এরপর ফিফটি তুলে নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহও। ৫৯ বলে দুটি চারের সাহায্যে ফিফটি পূর্ণ করেন এই অলরাউন্ডার।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪৮ ওভারে ৭ উইকেটে ৩৪০ রান। জয়ের জন্য এখনও প্রয়োজন ১৫ রান। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৬২ ও মাশরাফি বিন মর্তুজা ৫৬ রানে ব্যাট করছেন।

এদিকে ৩৫৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়েছিল বাংলাদেশ। রানের খাতা না খুলতেই বিদায় নেন ইমরুল কায়েস। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। এই উইকেটে সাব্বির রহমান রুম্মনের সঙ্গে ১১৬ রানের জুটি গড়েন সৌম্য।

ভালোই জমে উঠেছিল সৌম্য-সাব্বির জুটি। ফিফটি তুলে নেন সাব্বির রহমান। কিন্তু পা ফসকে গেল সৌম্যর। ব্যক্তিগত ৪৭ রানের মাথায় সাজঘরে ফিরে গেলেন তিনি। মিলিন্দা সিরিবর্ধনার বলে দাসুন শানাকার হাতে ক্যাচ তুলে দেন বাংলাদেশি এই ওপেনার।

বিদায়ের আগে ৪৩ বল মোকাবেলা করেছেন সৌম্য। ৫টি চার ও দুটি ছক্কায় ৪৭ রানের ইনিংসটি সাজিয়েছেন তিনি। স্ট্রাইক রেট ১০৯.৩০! সৌম্যর পর সাজঘরে ফিরেছেন সাব্বির রহমানও। ৬৩ বলে ১১টি চার ও একটি ছক্কায় সাব্বির করেছেন ৭২ রান। তিনি শিকার ধনঞ্জয়া ডি সিলভার। ক্যাচ দিয়েছেন থিসারা পেরেরার হাতে। সাব্বিরের স্ট্রাইক রেট ১১৪.২৮!

দারুণ ফর্মেই আছেন মুশফিকুর রহীম। তার কাছে তাই প্রত্যাশাটাও ছিল বেশি। কিন্তু মুশফিক সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারলেন কই? ২৩ বলে দুটি চারে ২০ রান করেই ফিরে গেলেন চতুরাঙ্গা ডি সিলভার বলে পরাস্ত হয়ে।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট অভিষেকেই বাজিমাত করেছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। প্রস্তুতি ম্যাচেও সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখলেন। ৪৫ বল খেলে চারটি চার ও দুটি ছক্কায় তুলে নেন দুর্দান্ত এক ফিফটি। ৩৩তম ওভারে ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বলে ছক্কা হাঁকিয়ে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন সৈকত। শেষ পর্যন্ত ওই ধনঞ্জয়ার কাছেই হার মানেন মোসাদ্দেক। বিদায়ের আগে করেছেন ৫৩ রান।

ঘরোয়া লিগে পারফর্ম করছিলেন প্রায় নিয়মিত। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে দলে তাই জায়গা পান শুভাগত হোম চৌধুরী। কিন্তু শ্রীলঙ্কা একাদশের বিপক্ষে নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। ২ রান করেই নিয়েছেন বিদায়। ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন এই অলরাউন্ডার।

এর আগে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩৫৪ রান তুলেছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। শ্রীলঙ্কার ওপেনিং জুটিতে আসে ৩৬ রান। এই জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। দিলশান মুনাবীরাকে সাজঘরে ফেরান বাংলাদেশি এই পেসার।

তবে দ্বিতীয় উইকেটে বিরাকোডিকে সঙ্গে নিয়ে শতরানের জুটি গড়েন কুশল পেরেরা। দলকে নিয়ে যাচ্ছিলেন বড় সংগ্রহের দিকে। ক্রমশই ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা এই জুটিতে আঘাত হানেন সাইফউদ্দিন। অর্ধশত করা বিরাকোডিকে রুবেল হোসেনের তালুবন্দি করে সাজঘরে ফেরান টাইগার এই তারকা। আউট হওয়ার আগে তার বাট থেকে আসে ৬৭ রান।

কুশল পেরেরাও তুলে নিয়েছেন অর্ধশত। ৬৪ রান করে সেচ্ছায় অবসর নেন পেরেরা। ধনঞ্জয়া ডি সিলভা করেছেন ৫২ রান। থিসারা পেরেরার ব্যাট থেকে এসেছে ৪১ রান। মিলিন্দা সিরিবর্ধনা ৩২ রান করে সানজামুলের শিকারে পরিণত হন।
বাংলাদেশের বোলারদের কেউ তেমন সুবিধা করতে পারেননি। মাশরাফি ৯ ওভারে ৬৬ রানে এক উইকেট দখল করেছেন। এছাড়া তাসকিন আহমেদ ৬ ওভারে ৫২ রানে এক উইকেট, রুবেল হোসেন ৭ ওভারে ৫৭ রানে ০ উইকেট, শুভগত হোম ১০ ওভারে ৫৮ রান দিয়ে কোন উইকেট পাননি। সানজামুল ইসলামই একমাত্র বোলার যিনি কম রান দিয়েছেন। তার ৬ ওভারের স্পেলে রান উঠেছে ২৭, নিয়েছেন ১ এক উইকেট।

প্রসঙ্গত, ক্রিকেট ক্লাব মাঠে অনুষ্ঠিতব্য এই প্রস্তুতি ম্যাচটিতে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ দলের চার তারকা তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান এবং শুভাশিস রায়কে।

Top