আজ : সোমবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

মোসাদ্দেকের চোখের ইনজুরি নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়ছেই

সময় : ৯:২৭ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ২৪ আগস্ট, ২০১৭


আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

অনুশীলনে হঠাৎ একটি কণা ঢোকে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের চোখে। এরপর তিন সপ্তাহ পেরিয়ে চতুর্থ সপ্তাহে পড়েছে এ ইনজুরি। তবে উন্নতি হয়নি আশানুরূপ। লাগতে পারে আরও লম্বা সময়। সেক্ষেত্রে চট্টগ্রাম টেস্ট খেলতে পারছেন না এক রকম নিশ্চিত।এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজেও তাকে দলে পাওয়া নিয়ে রয়েছে শঙ্কা। পুরোপুরি সেরে না উঠলে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরেও পাঠানো হতে পারে। বিডিবার্তা২৪.নেট এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীস চৌধুরী।বাঁ-চোখের কর্নিয়ায় ভাইরাল ইনফেকশনে ভুগছেন মোসাদ্দেক। তাই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দল থেকে বাদ দেওয়া হয় তাকে। আশা করা হচ্ছিল দ্বিতীয় টেস্টে হয়তো ফিরতে পারেন। আর তা না হলে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরেতো অবশ্যই। তবে বিসিবি চিকিৎসকের মতে লাগতে পারে লম্বা সময়ই, ‘মোসাদ্দেকের চোখের যে ইনজুরি ছিল তা তিন সপ্তাহের উপর হয়ে গেছে। চোখের চিকিৎসক বলেছেন আরও কয়েকটা দিন দেখার জন্য। ওর উন্নতি হচ্ছে। তবে যদি উন্নতি আশানুরূপ না হয় তাহলে দেশের বাইরে পাঠানো হবে ওকে।’
কর্নিয়ায় এ ধরণের ইনফেকশনে সাধারণত তিন সপ্তাহের মধ্যেই ঠিক হয়ে যায়। তিন সপ্তাহ পেরুলেও সময় বিসিবি নিতে চায় আরও কিছু দিন। আর তা না হলে থাইল্যান্ডে তাকে নেওয়া হতে পারে বলে জানান দেবাশীষ, ‘হ্যাঁ, সময়টা একটু বেশি লাগছে। তবে চোখের চিকিৎসক বলেছেন মাঝে মধ্যে বেশিও লাগে এমনকি ৬ মাসও লেগে যায়। আর কয়েকটা দিন অপেক্ষা করব। যদি খুব বেশি উন্নতি না হয় তাহলে আমরা ওকে বিদেশে পাঠানোর চেষ্টা করব। সেক্ষেত্রে থাইল্যান্ডই আমাদের প্রথম পছন্দ।’
চোখের সমস্যার কারণে চট্টগ্রামের অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দেননি মোসাদ্দেক। ঢাকায় দল ফিরলে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। খেলেছিলেন প্রস্তুতি ম্যাচও। তবে রোদে গেলে চোখ থেকে পানি পড়ায় তাকে নিয়ে ঝুঁকি নেয়নি বিসিবি। বাদ দেওয়া প্রথম টেস্ট থেকে। চিকিৎসকের মতে চোখের এমন সমস্যায় ৬ মাসও লেগে যায়। আর তা হলে অস্ট্রেলিয়া সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টও বটেই শঙ্কায় পড়বে সেপ্টেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর নিয়েও।

আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

Top