আজ : মঙ্গলবার, ২৭শে জুন, ২০১৭ ইং | ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

শের-ই-বাংলা মেডিকেলের ইন্টার্নী ডক্টর‌স হোস্টেল থেকে অস্ত্র উদ্ধার, ৩টি কক্ষ দখলমুক্ত, আটক ১

সময় : ৫:৩৫ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ১৪ মার্চ, ২০১৭


বরিশাল:বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের ইন্টার্নী ডক্টরস হোস্টেলে বহিরাগত উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এসময় হোস্টেল থেকে এক বহিরাগত আটক, একটি দেশীয় ধারালে অস্ত্র এবং মাদকদ্রব্য সেবনের বিভিন্নসরঞ্জমাদী জব্দ করা হয়। অভিযানের নেতৃত্বে ছিলেন শেরেবাংলা হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ এসএম সিরাজুল ইসলাম ও মেডিকেল কলেজ অধ্যক্ষ ডাঃ ভাস্কর সাহা। ইন্টার্নী চিকিৎসকরা জানান, স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তি প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘদিন ধরে হোস্টেলের চতুর্থ তলার বেশ কয়েকটি কক্ষ দখল করে রাখে। সেখানে তারা মাদক সেবন, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা, মাদকদ্রব্য বিক্রিসহ বিভিন্ন অসামাজিক কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল। এমনকি কয়েক দিন ধরেই হাসপাতালে একের পর এক ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে যার সাথে জড়িত বহিরাগতরা। সর্বশেষ শুক্রবার রাতে নারী ইন্টার্নী চিকিৎসক সেঁতুর মোবাইল ছিনতাই করা হয়। এসময় দুই ছিনতাইকারীকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। বহিরাগতদের উচ্ছেদের দাবীতে শুক্রবার রাতে হাসপাতালের গেট বন্ধ করে বিক্ষোভ করেন চিকিৎসকরা। পরে হাসপাতালের পরিচালক বহিরাগত উচ্ছেদের প্রতিশ্রুতি দিলে কাজে ফেরেন চিকিৎসকরা। এরই অংশ হিসেবে বহিরাগত উচ্ছেদে শনিবারও ইন্টার্নী হোস্টেলের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন ইন্টার্নী চিকিৎসকরা। খবর পেয়ে শনিবার দুপুর ২টায় হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ এসএম সিরাজুল ইসলাম ও কলেজ অধ্যক্ষ ভাস্কর সাহা হোস্টেলে পুলিশ নিয়ে অভিযান শুরু করেন। হোস্টেলের চতুর্থ তলার ৪০৪, ৪০৮ ও ৪০৯ এই তিনটি কক্ষে তল্লাশী চালিয়ে একটি ধারালো দা, একটি হকস্টিক ও মাদক সেবনের বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। হোস্টেল কক্ষ থেকে আটক করা হয় আলমগীর হোসেন নামে এক ব্যক্তিকে। সে নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া এলাকার ছোমেদ মৃধার ছেলে। কোতয়ালী থানার সেকেন্ড অফিসার আবু তাহের জানান, হোস্টেলে কয়েকটি কক্ষ বহিরাগতরা দখল করে অপরাধ করছে এমন অভিযোগে তল্লাশী চালিয়ে একটি দা, একটি হকস্টিক ও নেশাজাতীয় দ্রব্য তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে আলমগীর নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। শেরেবাংলা হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ এসএম সিরাজুল ইসলাম জানান, হাসপাতাল অভ্যন্তরে সম্প্রতি ছিনতাইসহ নানা ধরনের অপরাধ বেড়েছে। অভিযোগ উঠেছে ইন্টার্নী হোস্টেলে বেশ কয়েকটি কক্ষে বহিরাগতরা থাকছেন তারাই এই অপরাধের সাথে জড়িত। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা শনিবার দুপুরে তিনটি কক্ষে অভিযান চালিয়ে দখলমুক্ত করেছি। একাধিক ইন্টার্নী চিকিৎসক জানান, বৃহস্পতিবার একজন চিকিৎসকের গলায় অস্ত্র ঠেকিয়ে তার মোবাইল ও স্বর্নের চেইন ছিনতাই করে নিয়ে যায়। এর পূর্বে আরো দু,জন চিকিৎসকের মোবাইল ছিনতাই হয়েছে। সর্বশেষ ছিনতাইয়ের শিকার হন একজন নারী চিকিৎসক। তার মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় দু,জনকে আটক করে গণধোলাই দেয়া হয়।

Top