আজ : বুধবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সঙ্গীতশিল্পী জব্বারের স্মৃতি রক্ষায় কাজ করবে সরকার

সময় : ১২:৫১ অপরাহ্ণ , তারিখ : ৩০ আগস্ট, ২০১৭


আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী আব্দুল জব্বারের স্মৃতি রক্ষার্থে সরকার কাজ করবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, ‘সঙ্গীত জগতে আব্দুল জব্বারের বিকল্প নেই। তাই সরকারের পক্ষ থেকে আব্দুল জব্বারের যত কাজ আছে, সেসব একত্রিত করে আমরা তাকে যথাযথ সম্মান দেব। তার স্মৃতি রক্ষার্থে সরকার গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেবে, যা তাকে সম্মানিত করবে।’

বুধবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে আব্দুল জব্বারের মরদেহ দেখতে গিয়ে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

কিংবদন্তি এই শিল্পীর মৃত্যুর খবর শোনার পর বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে ছুটে যান তথ্যমন্ত্রী। মরহুমের স্বজনদের সান্ত্বনা দিয়ে ইনু বলেন, ‘আব্দুল জব্বার আমৃত্যু মুক্তিযুদ্ধের চেতনা মনে ধারণ করে বাংলাদেশের হাজার বছরের শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতির ধারাকে সমৃদ্ধ করেছেন। তিনি আমাদের জঙ্গিসন্ত্রাস এবং সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে উৎসাহ দিয়েছেন।’

এর আগে সকালে বিএসএমএমইউতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আব্দুল জব্বার। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।

সকাল সাড়ে এগারোটার দিকে আব্দুল জব্বারের মরদেহ তার ভূতের গলির বাস ভবনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কখন কোথায় এই কণ্ঠযোদ্ধাকে দাফন করা হবে এখনো জানা যায়নি।

আজ বিকাল তিনটার দিকে মরদেহ বারডেমের হিমঘরে রাখা হবে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য মরদেহ নেয়া হবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। এরপর বেলা তিনটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। আব্দুল জব্বারকে কোথায় দাফন করা হবে এখনো জানায়নি তার পরিবার। তবে আব্দুল জব্বারের ছেলে মিথুন জব্বার জানিয়েছেন, পরিবারের সবার সঙ্গে কথা বলার পর এই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

আব্দুল জব্বার কিডনি, হার্ট, প্রস্টেটসহ বার্ধক্যজনিত নানা রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত শনিবার বিএসএমএমইউ’র আইসিইউতে নেয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। মৃত্যুকালে আব্দুল জব্বার স্ত্রী, দুই ছেলে, এক মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

আপডেট নিউজ পেতে পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

Top