আজ : বৃহস্পতিবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৯ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সম্ভাবনা দেখে পথ চলতে হয় না

সময় : ৪:৩৫ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ২৪ মার্চ, ২০১৭


অভিনয় জীবনে বিভিন্ন চরিত্রে কাজ করার ক্ষুধা মোশাররফ করিমকে অফট্র্যাকের অভিনয়ের প্রতি উদ্বুদ্ধ করে। এ ক্ষুধাকে জীবনের চ্যালেঞ্জ হিসেবেই দেখেন তিনি। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন রকিব হোসেন:

নায়কদের সাধারণত একটু লম্বা হতে হয়। আপনি তেমনটি নন। এ নিয়ে আপনার কোনো আক্ষেপ রয়েছে?

না, কারণ চার্লি চ্যাপলিন মোটেও লম্বা ছিলেন না। অথচ অভিনয় দক্ষতা দিয়েই বিশ্বজয় করেছেন। আর তাই দৈহিক উচ্চতা নিয়ে কখনই আমি মনের মধ্যে কোনো কমপ্লেক্স তৈরি না।

আপনি প্রথম দর্শকদের চোখে পড়েন ক্যারাম নাটকে কাজ করে। সাফল্যের শুরুর রঙগুলো কেমন ছিল?
এটি পরিচালনা করেছেন মোস্তফা সারওয়ার ফারুকী। এই নাটকটি প্রচার হয়েছিল ঈদের অনুষ্ঠানমালায়। সে সময় এত এত নাটকের ভিড়ে এটি হয়তো অনেকেরই দেখার সুযোগ হয়ে ওঠেনি। ফলে আমি ভেবেছিলাম, কাজটির জন্য বোধ করি দর্শকদের সাড়া পাব না। কিন্তু না, কিছু যেতেই একদিন শান্তিনগর মোড়ে (ঢাকা) হঠাৎ করেই একদল ছেলে আমাকে ঘিরে ধরল। আমি ভাবলাম ওরা বোধ হয় ছিনতাইকারী। আমার এই ধারণা ভুল প্রমাণ করে ওদের একজন বলে উঠল-ইউ হ্যাভ ডান গ্রেট জব এ্যাট ক্যারাম। এই কথা শোনার পর আমার মনটা আনন্দে ভরে উঠলো।

আপনাকে জনপ্রিয় করেছে বেশকিছু নাটক। এই মুহুর্তে কোনো কোনো নামগুলো মনে পড়ছে?

তালা, শূন্য, পিক পকেট, ফাউল, জাঁতাকল, ঠুয়া, গুগল ডট কম, বনলতা সেন, ৪২০, ভবের হাট, ঘরকুটুম, হাউজফুল, তোমার দোয়ায় ভালো আছি মা, ফিফটি ফিফটি, এফএনএফ, পাটি গণিত, সিকান্দার বক্স সিরিজ ও সিনেমাটিক।

এই যে নিজেকে ভুলে ভিন্ন ভিন্ন চরিত্র হয়ে ওঠা। এটা কী করে সম্ভব হয়?

প্রতিটি নাটকে কাজের সময় আমি এবং আমার চরিত্র এই দুটোর মধ্যে পার্থক্য তৈরি করার চেষ্টা করি। একটি নির্দিষ্ট সিকোয়েন্সে বা মুহুর্তে আমি মোশাররফ করিম হলে কী করতাম আর চরিত্রটি কী করবে, সে বিষয়টি সম্পর্কে স্পষ্ট একটি চিত্র এঁকে নেই।

অভিনয়ের বাইরে মাঝে উপস্থাপনাও নাম লিখিয়েছেন আপনি। অভিজ্ঞতা থেকে কিছু বলবেন কি?

চ্যানেল আইতে প্রচারিত ‘রূপচাঁদা ফ্যান্টাস্টিক ফ্যামিলি’ শিরোনামের একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করে আমি দর্শকপ্রিয়তাও পেয়েছি। আমি অভিনয় করি, ওটাই ভালো পারি। কিন্তু আমাকে যখন উপস্থাপনার জন্য বলা হলো-কিছুটা সংশয় ছিল মনে। কারণ এর আগে কখনই এ কাজটি করা হয়নি আমার। অনুষ্ঠানটির পরিচালক ছিলেন ফাহমি। ওর পরিচালনায় অনেক নাটকে কাজ করেছি। ওর সঙ্গে ভালো বোঝাপড়া রয়েছে বলেই কাজটি করতে রাজি হয়েছিলাম।

আপনার জীবন দর্শন কী?

কখনই সম্ভাবনা দেখে পথ চলতে হয় না। ফলাফল ঠিক করে সেদিকে এগিয়ে গেলে মানুষ আর মানুষ থাকে না, সে রাক্ষস হয়ে যায়। এটি শুধু অভিনয় ক্ষেত্রেই নয়, জীবন সম্পর্কেও আমার দর্শন।

Top