আজ : শনিবার, ১৯শে আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সিলেট-১ আসনে অর্থমন্ত্রীর প্রার্থী হওয়ার ঘোষণায় প্রতিক্রিয়া

সময় : ১২:৫৯ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ১০ জুন, ২০১৭


সিলেট-১ আসনে পুণরায় প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। শুক্রবার সদর উপজেলা কমপ্লেক্সে চা-শ্রমিকদের অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে এমন ঘোষণা দেন তিনি। তার এ ঘোষণায় পক্ষে-বিপক্ষে প্রতিক্রিয়া দেয়া দিয়েছে।

চা-শ্রমিকদের অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী নিজের প্রার্থিতার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

২০১৬ সালের শেষের দিকে সিলেটের কবি কাজী নজরুল অডিটরিয়ামে দলের এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী তার বয়স হয়েছে জানিয়ে বলেছিলেন, তিনি আর নির্বাচন করবেন না। ওই অনুষ্ঠানে তিনি তার ছোট ভাই জাতিসংঘে সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত ড. একে মোমেনকে সিলেটবাসীর কাছে পরিচয় করিয়ে দেন এবং বলেন, দল চাইলে ড. মোমেন সিলেট-১ আসনে নির্বাচন করবেন। ওইদিন তিনি ড. মোমেনকে সিলেটবাসীর কাছে পরিচয় করিয়ে দিয়ে সহযোগিতা চান।

সিলেট-১ আসনে অর্থমন্ত্রী ফের প্রার্থী হওয়া প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেন, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল মুহিতের বয়সের ভারে একেকবার একেক কথা বলছেন। একবার বলেন প্রার্থী হবেন না, এখন আবার বলছেন প্রার্থী হবেন। এ ব্যাপারে কিছু বলতে চাই না। আমি নেত্রীর উপস্থিতিতে আলীয়া মাদরাসার মাঠে সিলেট-১ আসনে প্রার্থী হওয়ার আশা প্রকাশ করেছি। সুতরাং সিলেট-১ আসনে আমি মনোনয়ন চাইব।

তবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট মহানগর শাখার সভাপতি সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান এ প্রসঙ্গে বলেন, অর্থমন্ত্রী দেশ তথা সিলেটের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন। প্রবীণ এ নেতা ফের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচনের ঘোষণা দিয়ে থাকলে সিলেটের মানুষ তাকে স্বাগত জানাবে।

কামরান বলেন, এই বয়সে অর্থমন্ত্রী যে কাজ করে যাচ্ছেন, তা প্রশংসার দাবিদার। তিনি প্রার্থী হোন আমরাও চাই। তবে দলের নীতি নির্ধারনী ফোরামের উপর নির্ভর করে যে-কারো প্রার্থী হওয়া না হওয়া।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ জানান, অর্থমন্ত্রী ভবিষ্যতে নির্বাচন করবেন না, এমন কোনো ঘোষণা দেননি। তিনি বলেছিলেন, আমার ভাই ড. মোমেন নির্বাচন করতে চাইছেন। আমার বয়স হয়েছে। দল যদি তাকে মেনে নেয় তাহলে আপনারা সবাই তার পাশে থাকবেন।

অর্থমন্ত্রী মুহিতের নির্বাচনের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আশফাক আহমদ বলেন, তা ঠিক অর্থমন্ত্রীর বয়স হয়েছে। তবে এটিও ঠিক তার মতো সৎ কর্মঠ নেতা সিলেটে অভাব রয়েছে। সিলেট-১ আসনে অর্থমন্ত্রীর বিকল্প নেই।

এ ব্যাপারে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ জানান, অর্থমন্ত্রীর নির্বাচন করার ঘোষণাকে আমি দুইভাবে দেখছি। প্রথমতো তিনি সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য। সেই অনুযায়ী তিনি নির্বাচন করার ঘোষণা দেয়াটা অযুক্তিক কিছু নয়। তিনি আওয়ামী লীগের একজন সিনিয়র নেতা এবং অর্থমন্ত্রী। অপরটি হচ্ছে, একটি আসনে একের অধিক প্রার্থী থাকলে আসনটিতে কে প্রার্থী হবেন তা নির্ধারণ করবে দলের নীতি নির্ধারনী বোর্ড।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ বলেন, সিলেট-১ আসন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আসন। এই আসনে নির্বাচনের ঘোষণা অনেকেই দিয়েছেন, এখনও দিচ্ছেন। এমন ঘোষণাকে আমরা মূখ্য মনে করছি না। কারণ একটাই, এই আসনে জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রার্থী দেবেন। তাই বলতে চাই, নেত্রীর প্রার্থীই হবেন নৌকার কান্ডারি। আর সেই প্রার্থী পেছনে থাকবে গোটা সিলেট ছাত্রলীগ।

মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম তোষার বলেন, সিলেট-১ আসনে নেত্রী যাকে প্রার্থী দেবেন আমরা সেই প্রার্থীর জন্যই কাজ করবো।

Top