আজ : বুধবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৮ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সুইডেন আওয়ামী লীগের ৭ই মার্চ পালন

সময় : ১০:২৮ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ০৯ মার্চ, ২০১৭


সুইডেন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালন করা হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় স্টকহোমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানানোর মধ্য দিয়ে ৭ই মাচের্র ভাষণ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বাঙালির দীর্ঘদিনের আন্দোলনের এক পর্যায়ে ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধু সোহারওয়ার্দী উদ্যানে (তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান) স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন। তার সেই ভাষণ ছিল স্বাধীন বাংলাদেশের ভিত্তিপ্রস্তর। ‘রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরো দেব, এদেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাআল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’-বঙ্গবন্ধুর এই বজ্রকণ্ঠী ঘোষণায় বাঙালি জাতি পেয়ে যায় স্বাধীনতার দিক-নির্দেশনা।

আর সেই ঐতিহাসিক দিনটির স্মরণে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সুইডেন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুদ্দিন খেতু মিয়া। সদস্য সচিব লাভলু মনোয়ারের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন শামসুদ্দিন খেতু মিয়া, সুইডেন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল হাসান, আহবায়ক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক শেখ মোখলেস মিরাজ, ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের প্রধান সমন্বয়ক বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা গুলজার হুসাইন মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান, প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান ভুইয়া, সফিকুল আলম লিটন, নাজমুল হাসান খান, আরিফ মাহবুব, হেদায়েতুল ইসলাম শেলী।

সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন আফসার খান। এরপর দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করে বঙ্গবন্ধু এবং সকল স্বাধীনতা যুদ্ধে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়।

সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মাচের্র ভাষণের উপর আলোচনা করেন। সেই অগ্নিঝরা ভাষণের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতি ও বাংলার দামাল ছেলেরা মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে এবং পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ছিল এক ঐতিহাসিক মাইল ফলক বলে জানান বক্তারা। এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জন্য তাকে অভিনন্দনও জানান বক্তারা।

উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন সাইফুল ইসলাম চুন্নু, কাজী আকরামুজ্জামান শাহিন, মুজাহেদুল ইসলাম নওরোজ, আফছার খান, মনির ভুইয়া, দিদার শরিফ, আশরাফ খান, কাজী তুষার, ফয়সাল আহমেদ, কাজী নুরুল আলম, আনোয়ারুল আলমসহ আরো অনেকে।

Top