আজ : বুধবার, ২২শে নভেম্বর ২০১৭ ইং | ৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

স্বামী স্ত্রীতে কি আর বন্ধুত্ব হয়!


সকল নিউজ আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

অনেকেই খুব গর্ব করে বলেন, ‘আমার স্বামী খুবই ফ্রেন্ডলি’। অনেক স্বামীও বলে থাকেন ‘স্ত্রীর সঙ্গে সব শেয়ার করতে পারি।’ ভাগ্যবান বলতে হয় তাঁদের। আসলেই কি স্বামী স্ত্রী পরস্পরের বন্ধু হতে পারে? বিষয়টি নিয়ে কিছুদিন আগেই কথা হচ্ছিল একজনের সঙ্গে। আমার উত্তরটা ছিল হ্যাঁ আবার নাও। ব্যাখ্যা ছিল, স্বামীর-স্ত্রীর বন্ধুত্বের রূপ হয় অন্য রকম। অনেকটা পরিস্থিতি বুঝে আদল বদলের মতো। তাই বন্ধুর সঙ্গে বন্ধুত্ব আর স্বামী- স্ত্রীর বন্ধুত্বের মধ্যে থাকে অনেক তফাৎ।

বন্ধুর সঙ্গে সম্পর্ক হয় উদাসীন। যেন একটা গা ছাড়া ভাব। বন্ধু কি ভাববে সেটা নিয়ে মাথা ঘামানোর চিন্তা মাথায় আসে না। ধরুন আপনার পছন্দ ভেনিলা আইসক্রিম কিন্তু বন্ধুর চকলেট। তারপরও জোড় করে তার হাতে ধরিয়ে দিলেন ভেনিলা আইসক্রিম। বাধ্য হয়ে তাঁকে তাই খেতে হলো। কোনো কারণ নেই এই পাগলামির, তারপরও মজার। তবে স্বামী স্ত্রীর ক্ষেত্রে ব্যাপারটা হয় আলাদা। চিন্তা করতে হয় একে অন্যের ভালো লাগা মন্দ লাগার বিষয়গুলোর। কে কোনটাতে রেগে যাবে, তা ভাবতে হয় মজা করার আগেই। কারণ ছোট একটি বিষয় নিয়েও আত্মসম্মানে আঘাত লাগতে পারে।

রেগে গিয়ে আপনি রাগের সবটুকুই নির্দিধায় ঝেড়ে ফেলতে পারেন বন্ধুর ওপর। বেচারা বন্ধু জিজ্ঞেসও করবে না, কিসের জন্য তার এমন আচরণ। মুখখানা গো বেচারার মতো করে থাকবে আপনার সামনে। শুধু বকা শেষে ছোট্ট একটি সরি বলবেন, আর সব মিটমাট। স্বামী স্ত্রীতে কি এত সহজ হয়? না বুঝে কেন রাগারাগি করলেন তা নিয়েই প্রথমে এক চোট কথা শুনতে হবে আপনাকে।

স্বামী বেশি কাজ করেন, না স্ত্রী, এই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে গেলেই যুদ্ধ বেঁধে যায় প্রায় সব ঘরেই। হিসেব কষতে গেলেই অভিযোগের পাহাড় গড়ে ওঠে। অথচ বছরের পর বছর নিজে নোট তৈরি না করে বন্ধুকে দিয়ে নোট তৈরি করিয়েছেন, যেচে পড়ে বন্ধুর প্র্যাক্টিকেল খাতায় এঁকে দিয়েছেন। কিন্তু তখন হিসেব মেলানোর হিসেবটাই ছিলনা। বন্ধু বন্ধুর জন্য করবে এটাই ছিল স্বাভাবিক।

এবার আসা যাক কৈফিয়তের কথায়। বন্ধুর ক্ষেত্রে- ‘জানিস ওই দিন সেখানে ঘুড়তে গিয়েছিলাম, যা মজা হয়েছিল’ বলেই গল্প জুড়ে দেওয়া যায়। কিন্তু স্বামী স্ত্রীর বেলায় কোথায় যাব, কেন যাব, কেন গিয়েছিলাম ইত্যাদি প্রশ্নের উত্তর আগেই ভাবতে হয়। বন্ধুর কাছে দোষ স্বীকার করতেও সহজ। কারণ বন্ধুরা দোষ দিয়ে বন্ধুদের বিচার করে না। কিন্ত দাম্পত্য জীবনে আপনি আগে কি করেছিলেন তা নিয়েই কৌতুহল বেশি, ঘাঁটাঘাটিও বেশি।

এমন হিসেব আছে আরও অনেক। দায়বদ্ধতা, দায়িত্ব, কর্তব্যের ভারে স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ক জটিল মনে হয় আমার কাছে। স্বামী স্ত্রী যে প্রতিযোগী নয় বরং সহযোগী তাই ভুলে যাই আমরা। বন্ধু বললেও সেখানে সত্যিটা হয় একটু সাজিয়ে, প্রকাশটা হয় একটু গুছিয়ে। অন্যদিকে বন্ধুর সঙ্গে চলে এলোমেলো ভাবের খেলা। আমি আমার মতো করে বলেই যাব, বন্ধু তার মতো করে সাজিয়ে নেবে। বন্ধুত্বে হয়তো প্রতিশ্রুতি নেই কিন্তু তার জন্যে সমতার জটিল লড়াইটাও তো নেই।

Top