২১শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং, রবিবার

আমি কি প্রথমবার সঙ্গমে ব্যাথা পাবো ?

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৮

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

প্রশ্নঃ আমার বয়স ২০, আমার সঙ্গীর বয়স ২১. আমরা দুজনেই পরস্পরকে খুব ভালোবাসি। আমাদের মধ্যে প্রায় ৮-৯ বার ওরাল সেক্স হয়েছে। কিন্তু আমি ব্যাথা পেতে পারি তাই সে এখনো মিলিত হয়নি আমার সাথে। এটাকে কি physical relation বলা যায়? তার যৌনাঙ্গের তুলনায় আমার যৌনাঙ্গের আকার অথ্যাৎ যোনিপথ খুবই সংকীর্ণ, আমার breast-ও তুলনামূলক ছোট। এটা কি পরবর্তীতে ঠিক হয়ে যাবে? কিভাবে আমরা স্বাভাবিক ভাবে সঙ্গমে লিপ্ত হতে পারব? (আমার menstrual cycle নিয়মিত। আমরা অবিবাহিত।)

উঃ ওরাল সেক্স অবশ্যই এক ধরনের “Physical relation”। যেহেতু তোমরা এখনো অবিবাহিত তাই তোমাদের জন্য উপদেশ – ওরাল সেক্স করলেও আসল সেক্স বা যৌন সঙ্গমটা বিয়ের পরের জন্য বাঁচিয়ে রাখ। সবকিছু আগে-ভাগে করে নিলে বিয়ের পর সঙ্গীর প্রতি আগ্রহে ভাটা পরতে পারে!

প্রথম যৌন সঙ্গমের সময় ব্যাথা লাগবেই তার কোন মানে নেই। অনেকেই কোন ব্যাথা অনুভব করে না। সামান্য ব্যাথা লাগলেও সেটা খুব সহজেই সহ্য করা যায়। কিন্তু কিছু নারী সঙ্গমে ব্যাথা লাগার ভয়ে এতটাই চিন্তিত থাকে যে যৌন সঙ্গমের আনন্দটাই ঠিক করে অনুভব করতে পারেনা। ফলে প্রথম সঙ্গম সুখের হয় না। তাই প্রথম সঙ্গমে লিপ্ত হওয়ার সময় ব্যাথা পাওয়ার ভয় করা অনুচিৎ। রিল্যাক্সড থাকার চেষ্টা কর এবং মুহূর্তগুলো উপভোগ কর। রিল্যাক্সড থাকলে এবং সঙ্গমের ব্যাপারটা উপভোগ করলে যৌনাঙ্গ থেকে এক ধরনের পিচ্ছিল রস বের হয় যা লুব্রিকেশনের কাজ করে (যোনিপথ পিচ্ছিল করে দেয়)। এর ফলে সঙ্গমে সময় বা তার পরে ব্যাথা হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়।

উপযুক্ত পরিমানে লুব্রিকেশন হওয়ার আগেই যোনির মধ্যে লিঙ্গ বা অন্যকিছু প্রবেশ করালে ব্যাথা পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।] যদি তোমার সতীচ্ছদ (হাইমেন) এখনো অক্ষত থাকে তবে প্রথম যৌন সঙ্গমের সময় সেটা ছিঁড়ে যেতে পারে এবং তার ফলে সামান্য ব্যাথা লাগতে পারে (মোটামুটি সুচ ফোটানোর মত ব্যাথা)। তবে সতীচ্ছদের গঠনের উপর নির্ভর করে এই ব্যাথার মাত্রার হেরফের হতে পারে। অনেকের ক্ষেত্রে জন্মগতভাবে সতীচ্ছদের মধ্যবর্তী ছিদ্রের আকার বড় হওয়াতে যৌন সঙ্গমের সময় সতীচ্ছদ ছিন্ন হয় না এবং ফলতঃ কোন ব্যাথাও লাগেনা। সঙ্গম করার সময় সমস্ত রকম দুঃশ্চিন্তা ত্যাগ করে রিলাক্সড থাকার চেষ্টা কর। আর হ্যাঁ বিয়ের আগেই মা হতে না চাইলে বা যৌনরোগের হাত থেকে নিরাপদ থাকতে কনডম অবশ্যই ব্যবহার করবে।

যোনির স্থিতিস্থাপকতা অত্যন্ত বেশি, তাই ওটা দেখতে সংকীর্ণ মনে হলেও চিন্তিত হবার কারণ নেই।সঙ্গমের সময় লিঙ্গ প্রবেশ করালে লিঙ্গের চাপে যোনি নিজে থেকেই উপযুক্ত পরিমাণে প্রসারিত হয়ে যাবে। মনে রাখবে স্বাভাবিক প্রসবের সময় যোনিপথ দিয়েই আস্ত একটি শিশু বেরিয়ে আসে। কাজেই তোমার বয়ফ্রেন্ডের লিঙ্গও কোন অসুবিধা ছাড়াই বেশ আরামেই তোমার যোনিতে প্রবেশ করতে পারবে! তবে যৌন সঙ্গমে আবদ্ধ হওয়ার আগে এটা নিশ্চিত হয়ে নেবে যে তোমার যোনিপথের লুব্রিকেশন উপযুক্ত মাত্রায় হয়েছে। নাহলে লুব্রিকেটিং জেল ব্যবহার কর।

নিজের স্তনের সাইজ নিয়ে অকারণে চিন্তা কোরোনা। ওটা অনেকটা জীনগত ব্যাপার। তাছাড়া দেহের ওজন বৃদ্ধি বা হ্রাস পাওয়ার সাথে সাথেও স্তনের আকারের পরিবর্তন হয়। প্রেগন্যান্সিতেও স্তনের আকার বৃদ্ধি হয়। বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথেও স্তনের আকার ও আয়তন দুটোই পরিবর্তিত হতে থাকে। সুতরাং স্বাস্থ্যকর খাবার খাও, নিয়মিত এক্সারসাইজ কর এবং অহেতুক স্তনের আকার নিয়ে চিন্তা পরি

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন