আজ : বৃহস্পতিবার, ১৭ই আগস্ট, ২০১৭ ইং | ২রা ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত ২ কিশোরের ক্ষত বিক্ষত লাশের পরিচয় মিলেছে

সময় : ১১:২১ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ২৩ মার্চ, ২০১৭


আব্দুর রাজ্জাক, নীলফামারী প্রতিনিধিঃনীলফামারীর ডোমার উপজেলার মিরজাগঞ্জ রেল লাইনের ওপর থেকে উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত দুই

কিশোরের লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে। নিহতরা হলেন, ঠাকুরগাঁও জেলা সদরের

জগন্নাথপুর ইউনিয়নের সিংগিয়া মুন্সিপাড়া গ্রামের জামাল হোসেনের ছেলে

মঈন উদ্দিন (১৪) ও একই গ্রামের আব্দুস সোবহানের ছেলে রাশেদুল ইসলাম (১৩)।

জামাল হোসেন পেশায় ভ্যানচালক এবং সোবহান বাঁশ দিয়ে ডালি কুলা তৈরীর

কাজ করেন। গতকাল বুধবার সকালে জেলার ডোমার উপজেলার মির্জাগঞ্জ বাজারের

গেউরিয়া রেল ঘুন্টি এলাকার রেল লাইনের উপর হতে লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়েছে।

ধারনা করা হচ্ছে তাদেরকে হত্যার পরে লাশ দুটি রেল লাইনে ফেলে রাখা হয়েছে। আজ

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে তাদের

লাশের ময়না তদন্ত হয়েছে। নিহত মঈন উদ্দিনের বাবা জামাল হোসেন ও রাশেদুল

ইসলামের বাবা আব্দুস সোবহান জানান, গতকাল বুধবার রাত আটটার দিকে

সৈয়দপুর জিআরপি থানা পুলিশের মুঠোফোনের মাধ্যমে খবর পেয়ে রাত ১২টার

দিকে তারা নীলফামারী সদর থানায় এসে লাশ দুটি সনাক্ত করেন। মঈন উদ্দিন খালপাড়া

হাফিজিয়া মাদ্রাসায় এবং রাশেদুল মুন্সিপাড়া হাফিজিয়া মাদ্রাসায়

হাফিজিয়া পড়ে। তারা দুই জনে ১০ পাড়া কোরআন শরীফ মুখস্ত করেছো। তারা

দুই বন্ধু মঈনের খালার বাড়ি নীলফামারীর চাদের হাটে আসার কথা বলে মঙ্গলবার দুপুর

১২টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে আসে। পরে তাদের ফোনে যোগাযোগ করে

পাওয়া যাচ্ছিল না। এমনকি তারা তার খালার বাড়িতেও যায়নি। এ ব্যাপাওে সৈয়দপুর

জিআরপি থানার উপ পরিদর্শক আল ইমরান বলেন, তাদের বন্ধ থাকা মুঠোফোন দুটি

চালু করে মুঠোফোনে থাকা নম্বরে ফোন করে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সৈয়দপুর জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ কে এম লুৎফর রহমান বলেন,

বৃহস্পতিবার দুপুরে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে নিহত দুই

কিশোরের ময়না তদন্ত শেষে তাদের স্বজনদের কাছে লাশ দুটি হস্তান্তর করা

হয়েছে।

Top