আজ : সোমবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং | ১১ই বৈশাখ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

খালেদার সংবাদ সম্মেলন সরাসরি সম্প্রচারে ‘বাধা’

সময় : ১:১১ পূর্বাহ্ণ , তারিখ : ১৩ এপ্রিল, ২০১৭


দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলন সরাসরি সম্প্রচারে ‘বাধা’ প্রদানের অভিযোগ তুলে ‘সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার উপর নগ্ন হস্তক্ষেপ’ বলে দাবি করেছে বিএনপি। বুধবার রাতে দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক বার্তায় এ অভিযোগ করা হয়।

বার্তা বলা হয়, আজ বুধবার বিকেল সাড়ে চারটায় বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশানস্থ কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। সাংবাদিক সম্মেলন শুরু হলে বেশ কয়েকটি টেলিভিশন চ্যানেলে বিএনপি চেয়ারপারসনের বক্তব্য সরাসরি সম্প্রচারের শুরু করলেও সাথে সাথে তা বন্ধ করে দেয়া হয়।’
‘তাছাড়া অধিকাংশ টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে গুরুত্বহীনভাবে বিএনপি চেয়ারপার্সনের বক্তব্য প্রচার করা হচ্ছে বা কোনো কোনো টেলিভিশন চ্যানেলে তা সম্পূর্ণ ব্লাকআউট করা হয়েছে। সরকারের সরাসরি নির্দেশেই বিএনপি চেয়ারপার্সনের বক্তব্য প্রচারে বাধা সৃষ্টি করা হচ্ছে। গণমাধ্যমের ওপর সরকারের এই আচরণ স্বেচ্ছাচারী, অগণতান্ত্রিক ও সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার উপর নগ্ন হস্তক্ষেপ। এই ঘটনায় ভোটারবিহীন সরকারের গণবিরোধী কুৎসিত রুপটি আরো প্রকটভাবে ফুটে উঠলো।’
বার্তায় আরো বলা হয়, ‘এটি বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের প্রতি সরকারের প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশ। এরা বাক-ব্যক্তি ও মত প্রকাশের স্বাধীনতায় অবিশ্বাসী একটি রাজনীতিক দল, যারা দুঃশাসন চালিয়ে বহুদলীয় গণতন্ত্রকে অদৃশ্য করেছে। একদলীয় অপশাসন প্রলম্বিত করার জন্যই বিরোধী মত দমনে গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করতে সরকার নিরন্তরভাবে সদা তৎপর। ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকেই বর্তমান সরকার গণমাধ্যমকে নিজেদের উদ্দেশ্য সাধনে ব্যবহার করতে যাবতীয় কর্মকাণ্ড চালিয়ে এসেছে। সুতারাং সত্য প্রকাশিত হওয়ার ভয়েই সরকার আজ বিএনপির সাংবাদিক সম্মেলনে চেয়ারপারসনের বক্তব্য ইলেক্টনিক্স গণমাধ্যমে প্রচারে বিঘ্ন সৃষ্টি করে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি, চেয়ারপারসনের বক্তব্য টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে প্রচারে বাধা সৃষ্টি করতে সরকারের ন্যাক্কারজনক স্বৈরাচারী হস্তক্ষেপের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। ’

Top