আজ : বৃহস্পতিবার, ১৬ই আগস্ট, ২০১৭ ইং | ২রা ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

গুয়ামে কিছু হলে উ. কোরিয়া বড় ধরনের সমস্যায় পড়বে

সময় : ৫:১১ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১২ আগস্ট, ২০১৭


প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপ গুয়ামে যদি কিছু হয়, তাহলে উত্তর কোরিয়া খুব খুব বড় ধরনের সমস্যায় পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিউ জার্সি গলফ রিসোর্টে গুয়ামবাসীকে প্রতিশ্রুতি দিয়ে ট্রাম্প বলেন, এলাকাটি একেবারে সুরক্ষিত থাকবে, আমার ওপর আস্থা রাখুন। খবর বিবিসির।

তিনি আরও বলেন, উত্তর কোরিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞার পরিধি তাদের চাহিদামতো আরও বাড়ানো হতে পারে। পরে চীনের প্রেসিডেন্ট শিং জিনপিংয়ের সঙ্গে কথা বলেছেন ট্রাম্প। উভয় পক্ষকে শান্তির পক্ষে আহ্বান করেছেন শি।

চীনের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের এক সংবাদে উল্লেখ করা হয়, উভয় পক্ষকে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট।

তবে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ওই ফোনালাপে উভয় পক্ষই সম্মত হয়েছেন যে, উত্তর কোরিয়াকে অবশ্যই উত্তেজক এবং উদ্ধত আচরণ পরিহার করতে হবে।

প্রশান্ত মহাসাগরের পার্শ্ববর্তী দ্বীপ গুয়ামে মাঝারি ধরনের চারটি পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর হুমকি দিচ্ছে পিয়ংইয়ং। অন্যদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের উপর সামরিক হামলা চালানোর ব্যাপারে পিয়ংইয়ংকে সতর্ক করে দিয়েছেন।

দেশ দু’টির মধ্যে চলমান কথার লড়াইয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিশ্বনেতারা। কথার এই লড়াই পরিস্থিতিকে আরও অশান্ত করে তুলবে বলে অাশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারা। তারপরেও কোনো পক্ষের দিক থেকেই ক্ষান্ত হওয়ার আলামত মিলছে না।

এর আগে ট্রাম্প দাবি করেন, মার্কিন সেনাবাহিনী গুলি ভরা বন্দুকের মতই সতর্ক রয়েছে। ট্রাম্পের ওই বক্তব্যে শোরগোল পড়ে যায়। ওই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় উত্তর কোরিয়া অভিযোগ করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পরিস্থিতিকে একটি পারমাণবিক যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাচ্ছেন।

ট্রাম্প এবার নিউই জার্সিতে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, তিনি তার আগের ওই বক্তব্যে এখনও অটল রয়েছেন। তিনি আরও বলেন, খুব সতর্কতার সঙ্গে আমরা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি। আমার কথার মাধ্যমে পরিস্থিতির গুরুত্ব সম্পূর্ণ রূপে উত্তর কোরিয়া অনুধাবন করতে পেরেছে বলেই মনে হয়। আমার ওপর আস্থা রাখুন। এই লোক (কিম) যা করছে, তাতে তিনি পার পাবেন না।

Top