আজ : সোমবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং | ১১ই বৈশাখ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে প্রাপ্তি শূন্য,দানের খাতায় পূর্ণঃ দেশ বিক্রির অগভীর বক্তব্য দিয়ে খালেদা জিয়া মূল প্রসঙ্গকে খাটো করেছেন-ট্রুথ পার্টি

সময় : ৫:১১ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১২ এপ্রিল, ২০১৭


স্টাফ রিপোর্টারঃ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা চুক্তি প্রসঙ্গে খালেদা

জিয়া দেশ বিক্রির অগভীর বক্তব্য দিয়ে এর গুরুত্বকে খাটো করেছেন উল্লেখ করে

ট্রুথ পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম হাবিব বলেন,দেশ কখনও বিক্রি করা যায় না।

বিক্রিও হয়নি। কিন্তু ঘটে যাওয়া বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছেড়ে বিএনপি নেত্রীর

কল্পিত দেশ বিক্রির গল্প বিরোধী শক্তিকে সমালোচনার মুখে ফেলেছে।

বুধবার সকালে পল্টনে পার্টির অস্থায়ী কার্যালয়ে কার্য নির্বাহী কমিটির

জরুরী সভা শেষে এক ব্রিফিংয়ে গোলাম হাবিব এসব কথা বলেন। তিস্তার

পানির ন্যায্য হিস্যার বিকল্প সন্ধান বিশেষজ্ঞদের জানা নেই উল্লেখ করে ট্রুথ

পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, হাজার হাজার অনাবাদি জমি, লক্ষ্য লক্ষ্য টন কৃষি পণ্যের

ঘাটতি, লাখো বেকার শ্রমিকের উদ্বা¯ু‘ হয়ে নিস্বঃ জীবন-যাপন,ভুর্গস্থ পানি

নাগালের বাইরে চলে যাওয়া এবং জীব বৈচিত্রের ধ্বংসের আহাজারী সমাধানের

পথ সৃষ্টি হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে প্রাপ্তির খাতা শূন্য,দানের খাতায়

পূর্ণ দাবি করে সাবেক এই সাংসদ বলেন, নীতিবাচক দিকগুলো গুরুত্বের সঙ্গে

আলোচিত হচ্ছে না। ৪২টি সমঝোতা স্মারক, প্রটোকল ও চুক্তি ম্বাক্ষরের ফলে

বাংলাদেশে সামরিক-বেসামরিক ব্যবসা এবং সমরাস্ত্রের বাজার নিশ্চিত হওয়ায়

ভারত আনন্দিত। তিনি বলেন,ক্ষুদ্র রাষ্ট্র বাংলাদেশকে বড় কোন শত্র“ আক্রমণ করবে

তেমনটা প্রতিষ্ঠিত নয়। কিন্তু ভারতের উত্তর,উত্তর-পূর্ব ও উত্তর-পশ্চিমাংশে পরমাণু

অস্ত্রে সজ্জিত বড় বড় শত্র“রা বসে আছে। যার ফলে তাদের একটা প্রতিরক্ষা চুক্তির

প্রয়োজন ছিলো এবং তা তারা অর্জন করেছে। তিনি বলেন,এত কিছুর পরও

তিস্তার পানি সমস্যার সমাধান যদি হতো,তাহলে বাংলাদেশের জনগণ হাঁসি

মুখে সবকিছইু মেনে নিতো।

এতে পার্টির মহাসচিব এ টি এম গোলাম মাওলা চৌধুরী বলেন,স্বাধীনতার

৪৭ বছর পরও তিস্তাসহ অভিন্ন ৫৪টি নদীর পানির ন্যায্য হিস্যার কোন

সমাধান হয়নি। তার উপর কেউ কেউ আবার ফেনী নদীকে অভিন্ন নদী বানিয়ে

এর অধিকারে ভারতীয় ভাগ প্রতিষ্ঠিত করতে চায়। পানি সমস্যা জিইয়ে রাখা,

দেশের অর্থনীতির ভীত ধ্বংসের ষড়যন্ত্র দাবি করে তিনি বলেন, এদেশের জনগণ

অযৌক্তিক কোন চুক্তি বা দাবি মেনে নেবে না। গোলাম মাওলা বলেন,সামরিক

বা প্রতিরক্ষা চুক্তি দেশের মানুষের বোধগ্যম নয়। সার্বভৌমত্ব বিকিয়ে দিয়ে

বাণিজ্যের সুযোগ সৃষ্টি ব্রিটিশ বেনিয়াদের মতোই।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন পার্টির জেষ্ঠ্য নেতা আবু সৈয়দ, শাহ

আলম হাওলাদার, নুরুল কাদের চৌধুরী, জহিরুল ইসলাম, মাওলানা নুরুল কাদের

সিদ্দিকী, শহিদুল হাই হাইছুর ও তাইফুন নাহার রোজীসহ অনেকে।

Top