আজ : সোমবার, ২৬শে জুন, ২০১৭ ইং | ১২ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

মুফতি হান্নান-বিপুলের স্বজনদের কাছে চিঠি

সময় : ৫:৩১ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১১ এপ্রিল, ২০১৭


গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত হরকাতুল জিহাদ নেতা মুফতি আবদুল হান্নান ও তার সহযোগী শরীফ শাহেদুল বিপুলের সাথে কারাগারে দেখা করার জন্য তার স্বজনদের চিঠি পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে কারা কর্তৃপক্ষ মুফতি হান্নান ও বিপুলের স্বজনদের কাছে এই চিঠি পাঠায়।

কারাগারের জ্যেষ্ঠ তত্ত্বাবধায়ক মো. মিজানুর রহমান বলেন, প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হওয়ার বিষয়টি সোমবার হান্নান ও বিপুলকে জানানো হয়। দুজনের সাথে কারাগারে এসে দেখা করার জন্য স্বজনদের সকালে চিঠি পাঠানো হয়েছে। তবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত স্বজনদের কেউ কারাগারে আসেননি।

তিনি জানান, মুফতি হান্নান ও বিপুলের ফাঁসি কার্যকরের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। জল্লাদও প্রস্তুত। প্রস্তুত আছে ফাঁসির মঞ্চ।

হান্নান ও বিপুলের ফাঁসি কবে বা কখন কার্যকর করা হবে, সে ব্যাপারে কোনো তথ্য জানাননি এই কারা কর্মকর্তা।

এদিকে, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গাজীপুর কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের চার পাশে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সিলেটে ২০০৪ সালে তৎকালীন ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা ও তিনজন নিহত হওয়ার মামলায় মুফতি হান্নান এবং তার সহযোগী বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন ওরফে রিপনকে মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারিক আদালত।

হাইকোর্ট ও আপিল বিভাগেও তা বহাল থাকে। রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে (রিভিউ) তাদের করা আবেদন খারিজ হয়। গত ২৭ মার্চ তিনজনই প্রাণভিক্ষা চেয়ে কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করেন। গত রবিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, তাদের প্রাণভিক্ষার আবেদন রাষ্ট্রপতি নাকচ করেছেন।

মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত অপরজন দেলোয়ার রয়েছেন সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে।

তিনজনের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হওয়ার চিঠি সংশ্লিষ্ট কারাগারে পৌঁছানোর পর কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, তারা কারাবিধি অনুযায়ী ফাঁসি কার্যকর করতে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে।

Top