আজ : সোমবার, ২৫শে জুন, ২০১৭ ইং | ১২ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

লক্ষ্মীপুরে সালিশে লাঠিপেটা ও নাকে খতের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

সময় : ৬:১১ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১৮ জুন, ২০১৭


লক্ষ্মীপুরে মাটি কাটার শ্রমিক নূরুল আমিনকে (৫২) বাড়ি থেকে তুলে এনে গ্রাম্য সালিশে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত ও নাকে খত দিতে বাধ্য করার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিডি বার্তা ২৪.‘এ কেমন বিচার !’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি দেখে রোববার লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম তাৎক্ষণিক এ কমিটি করেন। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নুরুজ্জামানকে ঘটনাটির তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

এদিকে ছবি ও ভিডিওসহ সংবাদটি প্রকাশ হওয়ায় স্থানীয় প্রশাসনসহ সর্বত্র তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নুরুজ্জামান বলেন, সরেজমিনে তদন্তে গিয়ে ভুক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শীসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলা হবে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম বলেন, খবরটি দেখে তাৎক্ষণিকভাবে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) ঘটনাটির তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সদর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আহসানুল কবির রিপন দ্বিতীয় রমজান গ্রাম্য সালিশে শ্রমিক নূরুল আমিনকে প্রকাশ্যে নাকে খত দিতে বাধ্য করেন। এ সময় তার (চেয়ারম্যান) নির্দেশে গ্রাম পুলিশ জাহাঙ্গীর আলম ওই শ্রমিককে ১০ থেকে ১১টি বেত্রঘাত করেন।

মো. শহিদ নামে আরেক মাটি কাটা শ্রমিকের সঙ্গে বিবাদকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ করলে তিনি ইউনিয়নের বড় আউলিয়া গ্রামে সালিশের আয়োজন করেন। সালিশে নুরুল আমিনের স্ত্রী-সন্তানসহ শতাধিক গ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন। সালিশের দুইদিন পর নুরুল আমিনের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা আদায় করা হয়। সালিশে গোপনে ধারণ করা এক মিনিট ৩৫ সেকেন্ডের নির্যাতনের ভিডিওটি শুক্রবার ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

Top