আজ : রবিবার, ৩০শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং | ১৭ই বৈশাখ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সন্তানের ঘুম ভাঙ্গানোর অপরাধে শিক্ষিকার পিটুনিতে ৯ শিক্ষার্থী হাসপাতালে!

সময় : ৭:৫৭ অপরাহ্ণ , তারিখ : ১০ এপ্রিল, ২০১৭


আব্দুর রাজ্জাক, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ

সন্তানের ঘুম ভাঙ্গানোর অপরাধে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জের চাঁদখানা নুরুনেচ্ছা

সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক সহকারী শিক্ষিকা পঞ্চম শ্রেণীর ৯ ছাত্রকে

পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল রবিবার (৯ এপ্রিল)

রাতে আহত শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা তাদের কিশোরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলো, জেহাদ আলী, করিমুল, আদর আলী, দেলোয়ার

হেসেন, সম্রাট আলী, আপন মিয়া, লালবাবু, রেজোয়ান ও তাসফিরুল। এরা সবাই

উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের ডোঙ্গা পাড়া গ্রামের বাসিন্দা। জানা যায়,

বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সাবিহা সিদ্দিকা তার আট মাসের ছেলেকে নিয়ে

স্কুলে আসেন। রবিবার দুপুরে শিশুটিকে কমনরুমে ঘুম পাড়িয়ে রাখেন ওই

শিক্ষিকা। পাশেই ছিল পঞ্চম শ্রেণীর কক্ষ। শিক্ষার্থীদের সোরগোলে তার সন্তানের

ঘুম ভেঙে যায়। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে বেত দিয়ে পঞ্চম শ্রেণীর ৯ ছাত্রকে পিটিয়ে

আহত করেন। ছাত্ররা বাড়ি ফিরে তাদের অভিভাবককে জানায়। পরে সন্ধ্যায় আহত ৯

শিক্ষার্থীকে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের আবাসিক

মেডিক্যাল অফিসার ডা. গাওছুল আজম জানান, দুই ছাত্রের হাত ফেটে গেছে।

আহতদের শরীরে লাঠির আঘাতের চিহৃ রয়েছে। তাদের চিকিৎসা চলছে।

আহত শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের প্রশ্ন তারা এমন কী অপরাধ করেছে ওরা। এ জন্য

এভাবে পেটাতে হবে। তারা ওই শিক্ষিকার বিচার দাবী করেন। এদিকে অভিযুক্ত

সহকারী শিক্ষিকা সাবিহা সিদ্দিকা সাংবাদিকদের জানান, তেমন কিছুই হয়নি।

এলাকার কিছু লোক বিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য এক ধরনের অপচেষ্টা করছে।

তবে আমি ছাত্রদের একটু শাসন করেছি। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক

মোজাহারুল ইসলাম বলেন, আমি স্কুলের কাজে দুপুরে উপজেলা শিক্ষা অফিসে

ছিলাম। তাই এ বিষয়ে কিছুই বলতে পারব না। তবে ঘটনার কথা শুনেছি। এ ব্যাপারে

কিশোরগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মাসুদুল হাসান জানান, এ বিষয়ে

লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে

Top