১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, শনিবার

কাউকে বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেফতার করবেন না

আপডেট: নভেম্বর ২২, ২০১৮

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

নির্বাচন উপলক্ষে আগামী ১৫ ডিসেম্বরের পর থেকে পুলিশের সঙ্গে মাঠে সশস্ত্রবাহিনীর ছোট টিম কাজ করবে। বললেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা।

বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বিশেষ বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে নির্বাচন ভবন অডিটোরিয়ামে সিইসির সভাপতিত্বে পৌনে ১১টায় এ বিশেষ বৈঠক শুরু হয়।

১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে সিইসি বলেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের তথ্য সংগ্রহ করার কথা আমরা বলিনি। এটা আপনারা করবেন না। কারণ এটা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠে। যারা ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা তারা বিব্রত হন। আমরা এটা চাই না।

যদি তথ্য সংগ্রহ করার প্রয়োজন হয়, তাহলে কোনো ব্যক্তির তথ্য গোপন সূত্র ব্যবহার করে সংগ্রহ করতে পারেন। বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে তাদের জিজ্ঞেস করার দরকার নেই। এটা আমরা চাই না। কাউকে বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেফতার করবেন না। মামলা করবেন না। কাউকে হয়রানিমূলক মামলা বা গ্রেফতার করা যাবে না। আশাকরি, আপনারা এটা করছেনও না।

সিইসি আরও বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আয়োজনে পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ। আপনাদের কারণে যেনো নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ না হয় সে বিষয়টি লক্ষ্য রাখবেন।

তিনি বলেন, এ নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কেননা সবদল অংশ নেবে। নির্বাচনের সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। নির্বাচনের সব প্রস্তুতি একা করা সম্ভব নয়। প্রজাতন্ত্রের সবাই মিলেই নির্বাচন সুষ্ঠু করতে কাজ করবো। নির্বাচনের সিংহভাগ দায়িত্ব পুলিশের থাকে। ভোটারের নিরাপত্তা থেকে শুরু করে সব ধরণের নিরাপত্তার দায়িত্ব আপনাদের ওপরই বেশি থাকবে।

কেএম নূরুল হুদা আরও বলেন, নির্বাচন যেন কোনোভাবে প্রশ্নবিদ্ধ না হয়। আইন-শৃঙ্খলার দায়িত্ব পালনে আমরা পূর্ণ স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি। তবে, কমিশন আপনাদের কর্মকাণ্ড নজরদারি করবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন