২৪শে মার্চ, ২০১৯ ইং, রবিবার

ধানের শীষ প্রার্থীর প্রচারণায় যাওয়ায় যুবদল নেতাকে কোপাল যুবলীগ

আপডেট: ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশাল-১ আসনে বিএনপি প্রার্থী সাবেক এমপি এম জহির উদ্দিন স্বপনের নির্বাচনী পথসভায় ও গণসংযোগে যোগ দেয়ায় এক যুবদল নেতাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ উঠেছে যুবলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার দুপুরে গৌরনদী পৌরসভার বাদামতলা এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহতের নাম অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান। তিনি বরিশালের গৌরনদী উপজেলা যুবদলের আইনবিষয়ক সম্পাদক ও বরিশাল আইনজীবী ফোরামের সদস্য। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত যুবদল নেতা অভিযোগ করে বলেন, শুক্রবার বন্ধের দিনে বাবা-মায়ের কবর জিয়ারত করার জন্য মোটরসাইকেলে নিজ বাড়ি চাঁদশী গ্রামে যাচ্ছিলাম।

পথে দুপুর ১২টার দিকে গৌরনদী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের বাদামতলা এলাকায় পৌঁছলে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের ১৫-২০ নেতাকর্মী আমাকে মোটরসাইকেল থামাতে বলে।

আমি মোটরসাইকেল থামালে বরিশাল-১ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী জহির উদ্দিন স্বপনের নির্বাচনী সভায় যোগদানের অভিযোগ এনে তারা লোহার রড ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে আমার ওপর হামলা চালিয়ে আমাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। এ সময় আমার মোটরসাইকেলটি ভাঙচুর করে তারা।

ধানের শীর্ষের প্রার্থী জহির উদ্দিন স্বপন অভিযোগ করেন, শুক্রবার সকালে আমার সঙ্গে দেখা করে নিজ বাড়ি ফেরার পথে আধুনা গ্রামের যুবলীগকর্মী হারুন আকন দলবল নিয়ে পথরোধ করে বিএনপি কর্মী আব্দুল মান্নান, বুলবুল সরদার, মাসুদ করিমকে পিটিয়ে আহত করেছে। এ ছাড়া মাহিলারা বাজারের সুমন সরদার, শাহজাহান সরদার ও আমিন উদ্দিনের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানও বন্ধ করে দিয়েছে।

স্বপন আরও বলেন, শুক্রবার নলচিড়া ইউনিয়নে আমার প্রচারণা চালানোর কথা ছিল। কিন্তু সেখানে প্রতিপক্ষের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে জড়ো হয়েছে- বিষয়টি জানার পরে প্রশাসনকে অবহিত করি। প্রশাসন কর্মকর্তাদের অনুরোধে সহিংসতা এড়াতে আমি কর্মসূচি বাতিল করেছি।

এ প্রসঙ্গে গৌরনদী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাহাবুব আলম বলেন, হামলার ঘটনার সঙ্গে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কোনো নেতাকর্মী জড়িত নন।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন