২৪শে মার্চ, ২০১৯ ইং, রবিবার

ময়মনসিংহে যুবলীগ-ছাত্রলীগের থানা ঘেরাও ! চরম উত্তেজনা

আপডেট: জানুয়ারি ৮, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও বারবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেমের কলেজ পড়ুয়া ছেলে ইপেলকে পুলিশের নির্যাতন করে আটকের প্রতিবাদে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ও সড়ক অবরোধ।

আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত উপজেলা সদরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও সড়ক অবরোধ করা হয়। এ সময় ট্রেন চলাচলেও বাধা দেওয়া হয়।

জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে থানা থেকে ২০ গজ দুরে ইসলামিয়া সরকারি হাইস্কুলের গেইটের সামনে চেকপোস্ট বসিয়ে বিভিন্ন যানবাহনে তল্লাশী করছিলেন এসআই রুবেলের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল। এ সময় কলেজ ছাত্র সারোয়ার জাহান ইপেল ও তার বন্ধু ইয়াহিয়ার মোটর সাইকেল গতিরোধ করে মোটর সাইকেলের কাগজপত্র দেখতে চায় থানা পুলিশ। এ নিয়ে এক পর্যায়ে ইপেল ও তার বন্ধু ইয়াহিয়ার সাথে এসআই রুবেলের ধস্তাধস্তি এবং হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এসআই রুবেল ও সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা ইপেল ও ইয়াহিয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। খবরটি ছড়িয়ে পড়লে কয়েকশত আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে থানা ঘেরাও করে।

স্থানীয় এলাকাবাসী, ব্যবসায়ী ও পরিবহন শ্রমিকরা কলেজ ছাত্রের উপর পুলিশী নির্যাতনের প্রতিবাদে উপজেলা সদরের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়। উপজেলা সদরের সাথে উপজেলার অন্যান্য অঞ্চলের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

একদল যুবকের পিকেটিং এর কারনে ঢাকা-গফরগাঁও-ময়মনসিংহ রেলপথে রেল যোগাযোগ ব্যাহত হয়। ঢাকাগামী বলাকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ত্রিশাল উপজেলা ধলা রেলওয়ে ষ্টেশনে প্রায় দুই ঘন্টা আটকা পড়ে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন