১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং, রবিবার

সৌদিতে কারাগারে নারীদের উপর যৌন নির্যাতন!

আপডেট: জানুয়ারি ২৬, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

অভাবের তাড়নায় পরিবারকে সুখে রাখতে স্বদেশ ও স্বজনদের ছেড়ে ভিনদেশে পাড়ি দেয়া প্রবাসী শ্রমিকদের মধ্যে রয়েছে অনেক নারী শ্রমিকও।

বাংলাদেশের নারী গৃহকর্মীরা সৌদি আরবে যাওয়ার পর থেকেই বেতন নিয়ে বঞ্চনার পাশাপাশি শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ করে আসছেন।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তার এক রিপোর্টে এ ঘটনার বিস্তারিত তুলে ধরেছে।

রিপোর্টে বলা হয়, সৌদি আরবে গোপন কারাগারে আটক নারী অধিকারকর্মীদের যৌন নির্যাতন করা হয়েছে। বৈদ্যুতিক শক দেয়া হয়েছে। তদন্তকারীদের সামনে একজন নারীকে অন্য একজন নারীর চুমু দিতে বাধ্য করানো হয়েছে। ভয় দেখানো হয়েছে ওয়াটারবোর্ডিং বা পানিতে ডুবিয়ে স্বীকারোক্তি আদায়ের। এসব নারীর কাছে যাওয়ার সুযোগ দেয়ার জন্য বৃটিশ এমপিরা রিয়াদের ওপর চাপ বৃদ্ধি করেছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট।

অ্যামনেস্টি শুক্রবার প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলেছে, কমপক্ষে ১০ জন নারী অধিকারকর্মীকে নির্যাতন করা হয়েছে। এর মধ্যে একজন অধিকারকর্মীকে তদন্তকারীরা বলেছেন, তার পরিবারের সদস্যরা মারা গেছেন।

আসলে এটা ছিল মিথ্যা কথা। ওই অধিকারকর্মী পরিবার হারানোর বেদনা এক মাস ধরে বয়ে বেড়াচ্ছিলেন। গোপন কারাগারে আটক রাখা হয়েছে বন্দিদের। তাদেরকে এতটাই দুর্বল করে দেয়া হয়েছে যে তারা দাঁড়াতেই পারেন না।

গত বছর ব্যাপক হারে যখন সৌদি আরবে গ্রেপ্তার অভিযান শুরু হয় তখন এসব নারী অধিকারকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এর মধ্যে আছেন সুপরিচিত অধিকারকর্মী লুজাইন আল হাতলোল এবং আজিজা আল ইউসেফ। তারা নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকারের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন