২৬শে মার্চ, ২০১৯ ইং, মঙ্গলবার

ব্রেকিংঃ পুলিশি হেফাজতে তিন ‘ডিজিটাল ভাদাইমা

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

অশ্লীল শর্টফিল্ম তৈরি করে সেগুলো প্রচার এবং যুব সমাজকে অবক্ষয়ের দিকে ঠেলে দেয়ার অভিযোগে ইউটিউব চ্যানেল ডিজিটাল ভাদাইমার সংশ্লিষ্ট তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশের কার্যালয়ে আনা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর বিজয়নগর থেকে তাদের ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিটের মিন্টো রোডের কার্যালয়ে আনা হয়।

এ বিষয়ে ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি ও ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম বলেন, ভাদাইমা সংক্রান্তে অভিনেতা, চ্যানেলের এডমিন ও মালিকসহ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগের অফিসে আনা হয়েছে। আমরা তাদের অপরাধ খতিয়ে দেখছি।

তিনি আরও বলেন, নিরাপদ ইন্টারনেটের স্বার্থে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। তাদের নাম ও অন্যান্য তথ্যাদি পরবর্তীতে জানানো হবে।

সালমানের কর্মকাণ্ডের ওপর নজর রাখবে। সালমান তার মুচলেকার বাইরে কিছু করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এ ক্যাম্পেইনে অংশ নেয়া একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থার দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জাগো নিউজকে বলেন, পশ্চিম বাংলার কয়েকটি অশ্লীল ইউটিউব চ্যানেলের আদলে বাংলাদেশে কয়েকটি চ্যানেল খুলে সে ধরনের শর্ট ফিল্ম দেখানো হচ্ছে। সেগুলোর লম্বা তালিকা রয়েছে। এছাড়াও যেসব তারকারা লাইভে এসে, নাটকে কিংবা পোস্টে অশ্লীল বার্তা দিচ্ছেন তাদেরকেও জবাবদিহিতা করতে হবে।

এর আগে রোববার ইন্টারনেটে অপেশাদার এবং অপ্রাসঙ্গিক ভিডিও ছড়ানোর অভিযোগে মডেল সানাই মাহবুব সুপ্রভাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয় ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিট। পুলিশের হেফাজতে থেকে নিজের ফেসবুক আইডি দিয়ে লাইভে এসে নিজের কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চান সানাই।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন