২৬শে মার্চ, ২০১৯ ইং, মঙ্গলবার

এবার লঞ্চে ছাত্রলীগের হামলা

আপডেট: মার্চ ১৭, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

এবার লঞ্চে কেবিন না পেয়ে ঢাকা-পটুয়াখালী নৌরুটে দুইটি লঞ্চ সুন্দরবন ও জামালে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।ঘটনাটি ঘটিয়েছেন ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মীরা।

রোববার দুপুরে পটুয়াখালী নৌবন্দর লঞ্চ টার্মিনালে এ ঘটনা ঘটে। লঞ্চ কর্তৃপক্ষ অবরোধ ঘোষণা করে পটুয়াখালী নৌবন্দর টার্মিনাল ত্যাগ করে অন্য স্থানে নোঙ্গর করে রেখেছে।

সুন্দরবন লঞ্চ-৯ এর কেরানি মশিউর রহমান জানান, রোববার পটুয়াখালী নৌবন্দর টার্মিনালে পটুয়াখালী থেকে যাত্রী নিয়ে ঢাকাগামী সুন্দরবন-৯ ও জামাল-৫ লঞ্চ দুইটি নোঙ্গর করাছিল। দুপুর ২টার দিকে ১০-১৫ জন যুবক ছাত্রলীগ পরিচয় দিয়ে লঞ্চের কেবিন বুকিং ইনচার্জ জাফর ভাইকে খোঁজ করেন।

তিনি বলেন, এসময় তারা লঞ্চে ঘোরাঘুরি করে পুনরায় আমার (মশিউরের) কাছে এসে কিছু না বুঝে ওঠার আগেই মারধোর করে। মারধোরের একপর্যায় লঞ্চের তৃতীয় তলা থকে দ্বিতীয় তলায় নামায়। পরে তারা অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে সুন্দর ও জামাল লঞ্চের কেবিন রুমের গ্লাস ভাংচুর করে চলে যায়।

অপরদিকে সুন্দরবন লঞ্চের যাত্রী সাইফুল ইসলাম জানান, রোববার হামলার ঘটনায় লঞ্চ কর্তৃপক্ষের দোষ রয়েছে। তারা প্রতিনিয়ত যাত্রীদের হয়রানী করে আসছে। যার ফলে যাত্রীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে হামলা করেছে।

এদিকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান সিকদার জানান, আমি হামলার ঘটনার আগে কেবিনের জন্য ঘাটে গিয়েছি এবং কেবিন পেয়েছি। সে ক্ষেত্রে ছাত্রলীগ কেন হামলা করবে। হামলার ঘটনায় আমি দুঃখিত।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন