আজ : শুক্রবার, ২০শে অক্টোবর ২০১৭ ইং | ৫ই কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিএনপির কার্যক্রমে স্থবিরতা


সকল নিউজ আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

চলতি বছরের ১৫ জুলাই যুক্তরাজ্যে যান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। চিকিৎসার জন্য তিনি লন্ডনে গিয়ে বড় ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে ওঠেন।

প্রায় তিন মাস হতে চলল সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে আছেন। কবে নাগাদ দেশ ফিরবেন, এখনও নিশ্চিত নয়। দলীয় প্রধানের দীর্ঘ অনুপস্থিতির কারণে বিএনপির স্বাভাবিক সাংগঠনিক কার্যক্রমে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে।

বিএনপির একাধিক সিনিয়র নেতার সঙ্গে আলাপচারিতায় এমনটাই উঠে এসেছে। তারা জানান, যাকে ঘিরে দীর্ঘ সময় বৃহৎ একটি দলের কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে, তার অনুপস্থিতি কিছুটা ব্যাঘাত সৃষ্টি করবে এটাই স্বাভাবিক। তবে তিনি চিকিৎসা শেষে শিগগিরই দেশে ফিরবেন এবং আবারও সাংগঠনিক কার্যক্রমে গতি আসবে বলে আশাবাদী নেতাকর্মীরা।
খালেদা জিয়ার দীর্ঘ অনুপস্থিতির কারণে বিএনপি পুনর্গঠনেও স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। ঝুলে পড়েছে অনেকগুলো সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত। অঙ্গ সংগঠনগুলোও কোনো সক্রিয় কর্মকাণ্ডে নেই। সারাদেশে জেলা সম্মেলন ও নতুন কমিটি ঘোষণার কর্মসূচি পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে।

স্থায়ী কমিটির তিনটি পদ শূন্য রয়েছে। কেন্দ্রীয় কমিটিতেও অনেক পদ খালি। কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বিএনপিতে মন্ত্রণালয়ভিত্তিক উপ-কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হলেও তা আলোর মুখ দেখেনি।

এরই মধ্যে প্রায় দেড় বছর কেটে গেল। ফলে স্থায়ী কমিটির খালি পদসহ কেন্দ্রীয় কমিটি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটিগুলোর পদ প্রত্যাশীরা হতাশ হয়ে পড়েছেন।

এছাড়া ছাত্রদল, কুষকদলসহ কয়েকটি অঙ্গ সংগঠনের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি পুনর্গঠন হচ্ছে না। যুবদলের নতুন কমিটি আংশিক ঘোষণা দীর্ঘদিন হলেও পূর্ণাঙ্গ করা হচ্ছে না।

একইভাবে ঢাকা মহানগর পূর্ণাঙ্গ কমিটির পুনর্গঠনের বেঁধে দেওয়া সময় অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে। বর্তমানে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড প্রেস বিজ্ঞপ্তি, দিবস পালনেই সীমাবদ্ধ রয়েছে।

Top