যে কারণে হতাশ টাইগার কোচ

বৃষ্টিতে পণ্ড হয়ে গেল বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড ম্যাচ। এতে তিনটি পয়েন্ট হারাতে হয়েছে বাংলাদেশকে। সেই সঙ্গে দুদিন ধরে কোনো অনুশীলনও করতে পারছে না টাইগাররা। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মধ্যেই অবশ্য মালাহাইডের নেটে দলের কয়েকজনের ব্যাটিং দেখছিলেন স্টিভ রোডস। কিন্তু এক পর্যায়ে বৃষ্টির তীব্রতা বাড়লে ড্রেসিং রুমে ছুটতে হয় সবাইকে। বাংলাদেশ কোচ অবশ্য ম্যাচের চেয়েও বেশি চিন্তিত অনুশীলন নিয়ে। বৃহস্পতিবার (৯মে) ম্যাচ বাতিলের পর সাংবাদিকদের স্টিভ রোডস বলেন, ‘হতাশ লাগছে। এই ম্যাচটি জিততে খুব করে চাইছিলাম আমরা। আবাহাওয়া নিয়ে আমরা হতাশ, তবে করার তো কিছুই নেই। মিশ্র অনুভূতি সত্যি বলতে। তবে নিশ্চিতভাবেই ২ পয়েন্টের বেশি চাইছিলাম আমরা।’ তিনি আরও বলেন, ‘বছরের এই সময়টাতে আয়ারল্যান্ড ও ইংল্যান্ডে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়া অস্বাভাবিক নয়। তবে সামনেও অনেক খেলা আছে। আগামীকালও বৃষ্টি হবে কিনা তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি। কারণ কাল অনুশীলন আছে আমাদের। সেটিও করতে না পারলে খারাপ হবে। আশা করি আবহাওয়া ঠিক থাকবে।’

বিশ্বকাপের আগে এই ম্যাচগুলো ছিল বাংলাদেশের জন্য প্রস্তুতির দারুণ সুযোগ। সেইসঙ্গে প্রতিটি অনুশীলন সেশনও ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। রোডসের কোচিংয়ের যা ধরন, লম্বা সময় অনুশীলন করাতে পছন্দ করেন তিনি। এই ইংলিশ দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি ট্রেনিং সেশনই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে লম্বা হয়েছে। আজকের ম্যাচ জিতলে ফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে যেত বাংলাদেশ। তবে এই টুর্নামেন্টের বাইলজ নিয়েও বিস্ময় প্রকাশ করেন রোডস। আবারও হতাশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘টুর্নামেন্টর নিয়মটা বেশ ইন্টারেস্টিং। এখানে বোনাস পয়েন্টসহ জিতলে ৫ পয়েন্ট। ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়া মানে ৩ পয়েন্ট হারানো। আমরা যে পয়েন্ট পদ্ধতিতে অভ্যস্ত, সেখানে জিতলে পাই ২ পয়েন্ট, খেলা না হলে ১ আজকে আমরা বোনাস পয়েন্টের জন্য চেষ্টাই করতে পারলাম না। সেদিক থেকেও আমরা আজ হতাশ।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*