আজ : শুক্রবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিএনপি শুধুই একটি অপরাধী ও সন্ত্রাসীদের দল


মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে ‘অপহরণ করে হত্যার ষড়যন্ত্রের’ মামলায় শফিক রেহমান, মাহমুদুর রহমানসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। অভিযোগপত্রভুক্ত অন্যান্য সদস্যরা হলেন জাতীয়তাবাদী সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংস্থার (জাসাস) সহ সভাপতি মোহাম্মদ উল্লাহ মামুন, তার ছেলে রিজভী আহাম্মেদ ওরফে সিজার এবং যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান ভূঁইয়া। আসামিদের মধ্যে মামুন ও মিজানুরকে অভিযোগপত্রে পলাতক দেখানো হয়েছে।

আগামী ৬ মার্চ অভিযোগপত্রটি বিচারকের স্বাক্ষরে গ্রহণের জন্য তারিখ রয়েছে বলে জানা যায়।

এ নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছেলে ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় আজ এক ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়েছেন। সেখানে তিনি লেখেন,‘ আমার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অফ জাস্টিস (ডিওজে) থেকেপ্রথম যোগাযোগ করা হয় এই মামলার ভিক্টিম হিসেবে রিজভি আহমেদ সিজার ও তার দুর্নীতিবাজ বন্ধু এফবিআই সদস্যের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য এবং আমি সাক্ষ্য দেই। সিজার ডিওজে কর্মকর্তাদের কাছে আমাকেঅপহরণ ও হত্যার পরিকল্পনার কথা স্বীকার করে। মাহমুদুর রহমান ও শফিক রেহমানের প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার কথাও বলে। ডিওজের তথ্য প্রমাণের সূত্র ধরেই আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের তদন্ত চালায়।

এ থেকে আবারও প্রমাণ হয় বিএনপি শুধুই একটি অপরাধী ও সন্ত্রাসীদের দল। হত্যার রাজনীতিতেই তাদের বিশ্বাস। ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসেই তারা হামলা চালায় সংখ্যালঘুদের উপর। ক্ষমতায় থাকাকালীন তারা আমাদেরসংসদ সদস্য আহসানউল্লাহ মাস্টার, সাবেক মন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া সহ অসংখ্য নেতাকর্মীদের হত্যা করে। তারা আমার মা`কে ২০০৪ সালে গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে হত্যার চেষ্টা করে। ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ততাদের অগ্নিসন্ত্রাসের আগুনে পুড়ে মারা যান শত শত নিরীহ জনসাধারণ ও আহত হন আরও হাজার হাজার মানুষ। আর আমাকেও যুক্তরাষ্ট্রে হত্যার ষড়যন্ত্র ও পরিকল্পনা করা হয়।

এই ঘটনাগুলো অন্য যেকোনো দেশে ঘটলে এতদিনে অবশ্যই সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তারা নিষিদ্ধ হতেন। জেলই তাদের সবার ঠিকানা হওয়া উচিৎ।’

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের সেপ্টেম্বর মাসের আগে মামুনসহ বিএনপি ও বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটভুক্ত অন্যান্য দলের উচ্চপর্যায়ের নেতারা রাজধানীর পল্টনের জাসাস কার্যালয়ে, যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক শহরে, যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকার একত্রিত হয়ে সজীব ওয়াজেদ জয়কে আমেরিকায় অপহরণ করে হত্যার ষড়যন্ত্র করেছিলেন বলে ২০১৫ সালের ৩ অগাস্ট গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক ফজলুর রহমান ফৌজদারি দণ্ডবিধির ৩০৭ ও ১২০ (বি) ধারায় ঢাকার পল্টন থানায় এই মামলা দায়ের করেন।

Top