আজ : শুক্রবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বুড়ো আফ্রিদির অবাক ক্যাচ!


পাকিস্তানের হার্ডহিটিং ব্যাটসম্যান শহিদ আফ্রিদির বয়স ৩৮ ছুঁইছুঁই। এই বয়সে অনেক ক্রিকেটারই ব্যাট-প্যাড গুছিয়ে অবসর নিয়ে নেন। আফ্রিদি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও বৈশ্বিক টি-টুয়েন্টি লিগগুলো ঠিকই খেলে যাচ্ছেন। এবং প্রায়ই তার ব্যাটে ওঠে আগের মত ঝড়। এবার ফিল্ডিংয়েও দারুণ এক ক্যাচ নিয়ে প্রমাণ করলেন বয়সটা শুধুই একটি সংখ্যা। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) করাচি কিংস বনাম কোয়েটা গ্লাডিয়েটর্সের ম্যাচে।

পিএসএল ইতিহাসে গ্লাডিয়েটর্স কখনই কিংসের কাছে হারেনি। এদিনও আফ্রিদির দল কিংস ১৫০ রানের লক্ষ্য রেখেছিল গ্লাডিয়েটর্সের সামনে। রান তাড়া করতে নেমে প্রথম থেকেই উইকেট হারানো শুরু করে গ্লাডিয়েটর্স। তিন নম্বরে নেমে উইকেটের একপ্রান্ত ধরে রেখেছিলেন পাকিস্তানি বাঁহাতি ব্যাটসম্যান উমর আমিন।

১৩ তম ওভারের পেসার মোহাম্মদ আমিরের একটি লেংথ বল সোজা ব্যাটে লং অনের উপর দিয়ে উড়িয়ে মেরেছিলেন উমর। দেখে মনে হচ্ছিল বলটি বাউন্ডারি লাইন পেরিয়েও যাবে। এখানেই এসে উপস্থিত আফ্রিদি। তার ৩৬ বলে তৎকালীন দ্রুততম ওয়ানডে সেঞ্চুরি যেমন অবিশ্বাস্য ছিল তেমন এক অবিশ্বাস্য চেষ্টায় লাফিয়ে বাউন্ডারি লাইনে একহাতে ক্যাচটি ধরে ফেলেন তিনি। কিন্তু যখন দেখলেন বাউন্ডারি লাইনের ভেতরে চলে যাচ্ছেন তখন বুদ্ধি করে বলটি ভাসিয়ে দিলেন বাতাসে। বাউন্ডারির ভেতর থেকে ফিরে বলটি আবার তালুবন্দি করেন আফ্রিদি। অবিশ্বাস্য এই ক্যাচে ৩১ রানেই থেমে যায় উমরের ইনিংস। পরে গ্লাডিয়েটর্স ম্যাচটিও হারে ১৯ রানে।

এই ক্যাচ নেয়ার পর থেকেই প্রশংসায় ভেসে যাচ্ছেন আফ্রিদি। ক্যাচ ধরার পরপরই ধারাভাষ্যকার বলেছিলেন, ‘বয়স প্রায় ৩৮। অনেকে বলে ৪৫। এই ক্যাচটি দেখার পর আমি বলব তার বয়স ৩২।’

বুড়ো হাড়ের এমন ভেল্কি দেখানোর পর আফ্রিদি নিশ্চিন্তে আরও কয়েকবছর খেলে যাওয়ার কথা ভাবতে পারেন!

সূত্র : ডিএনএ ইন্ডিয়া।

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ...
Top