আজ : শুক্রবার, ২০শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং | ৭ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

যে কারণে নেই জাকির-আফিফরা, আছেন ইমরুল-তাসকিন


নিদাহাস ট্রফির জন্য সোমবার ১৬ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। দলে ফিরেছেন ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজে ইনজুরিতে পড়া সাকিব আল হাসান। আর সর্বশেষ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজের দল থেকে বেশ পরিবর্তন এসেছে নিদাহাস ট্রফির দলে। যেখানে জাকির হাসান, আফিফ হোসেনরা এক সিরিজ পরই বাদ পড়েছেন। আবার বাজে টি-টুয়েন্টির বাজে গড় নিয়েও সুযোগ পেয়েছেনে ইমরুল কায়েস। আছেন তাসকিন আহমেদ, নুরুল হাসান সোহান। দল গঠনের এসব নানা দিক নিয়ে মিরপুরে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। চলুন জানা যাক প্রধান নির্বাচকের ব্যাখ্যা।

প্রশ্ন : টি-টুয়েন্টিতে বাজে গড় ইমরুল কায়েসের। তারপরও তার দলে অন্তর্ভুক্তি…?

নান্নু : ইমরুল কায়েসের অন্তর্ভুক্তি তৃতীয় ওপেনার হিসেবে। আমরা চাচ্ছি যারা ফাস্ট বোলিংয়ের বিপক্ষে ভালো ব্যাটিং করতে পারে এমন একজনকে নিতে। যেহেতু ও টেস্টে ওপেন করে। শ্রীলঙ্কার কন্ডিশনে পেসারদের আধিক্য থাকবে। ভারতও অনেক পেসার নিয়ে খেলে। ওই সব চিন্তা করেই তৃতীয় ওপেনার হিসেবে ওকে নেওয়া।

প্রশ্ন : ইমরুল ভালো ফাস্ট বল খেলে। এমন ওপেনার কি আর নেই?

নান্নু : অবশ্যই আছে। আমরা অভিজ্ঞতাকে একটা কারণেই মূল্যায়ন করেছি যে, যেহেতু আমাদের শ্রীলঙ্কা সিরিজটা খুব খারাপ গেছে। এখন যদি অভিজ্ঞতাটা কাজে লাগাতে পারে তবে দলের জন্যই ভালো।
প্রশ্ন : শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে জাকির হাসান, আফিফ হোসেনদের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। এক সিরিজ পরই তাদের বাদ দেওয়ার কারণ…

নান্নু : জাকির বাদ পড়েছে তামিম ইকবাল ফেরায়। আফিফকে নিয়েছিলাম সাকিবের বদলে। সে যেহেতু ফিরেছে তাই আফিফ নেই। কিছু খেলোয়াড় বিপিএলে হোমে ভালো খেলেছে। এই হিসেবে ওদেরকে পরখ করে দেখেছি। ২০২০ বিশ্বকাপ নিয়ে আমাদের একটা ভিশন আছে। ওদেরকে পুলভুক্ত করেছি এবং ওদেরকে টাইম টু টাইম দলের জন্য গড়ে তুলব।

প্রশ্ন : তাসকিন-সোহানদের ফেরা প্রসঙ্গ।
নান্নু : সোহান ঘরোয়া ক্রিকেটে যথেষ্ট ভালো খেলছে। সেটা মাথায় রেখেই ও এসেছে। আর তাসকিন, অধিনায়কের পছন্দ ছিল। যেহেতু প্রেমাদাসায় খেলা, বড় মাঠ। সেখানে যারা ভালো গতিতে বল করতে পারে, শর্ট বল করার অভিজ্ঞতা আছে, এই চিন্তা করেই তাকে নিয়েছি।

প্রশ্ন : তাসকিন কি তাহলে অধিনায়কের চাওয়াতেই দলে?

নান্নু : আমাদের সবার সম্মতিতেই এসেছে। আমাদের দেশে এখন যতো পেসার আছে, ওরই কিন্তু বেশি গতি। এটা কিন্তু মানতেই হবে। ওকে নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টের চিন্তা আছে। টিম ওয়ার্কের মতো করে একজন খেলোয়ড়কে নেয়া হয়।

প্রশ্ন : সাইফুদ্দিন কেনো বাদ?

নান্নু : গত সিরিজে তার পারফরম্যান্স চিন্তা করা হয়েছে। ম্যানেজমেন্ট ওর বোলিং নিয়ে সন্তুষ্ট নয়। এ কারণেই সে নেই।

প্রশ্ন : মোসাদ্দেকের না থাকা ও তার ভবিষ্যত?

নান্নু : ওর চোখে সমস্যা ছিল। সেটা কাটিয়ে সে খেলায় ফিরেছে। আমাদের মনে হয় ও এখনো স্ট্রাগল করছে। এ কারণেই ওকে কিছুদিন সময় দেয়া হয়েছে। ওকে নিয়ে আসলে আমাদের নির্দিষ্ট পরিকল্পনা আছে।

প্রশ্ন : সাকিবের মেডিকেল রিপোর্ট কি বলছে?

নান্নু : আরও এক সপ্তাহ সময় আছে। আশা করছি ও শিগগিরই খেলার মতো অবস্থায় ফিরবে।

প্রশ্ন : পাঁচটি পরিবর্তন স্কোয়াডে। টি-টুয়েন্টির সেরা কম্বিনেশন নিয়ে কি তাহলে এখনো নিশ্চিত হতে পারছে না ম্যানেজমেন্ট?

নান্নু : টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটে কিন্তু আমাদের পারফরম্যান্স এখনো খুব ভালো নয়। সে হিসেবে বিশ্বকাপ নিয়ে আমাদের একটা পরিকল্পনা আছে। এখন আমরা যদি ১৮ জনের একটা পুল রেডি করে ফেলতে পারি, সেটা আমাদের জন্য ভালো হবে।
প্রশ্ন : নিদাহাস ট্রফিতে লড়াই করার যোগ্য দল এটি?

নান্নু : আমি আশাবাদি। আশা করি এই দলটা ভালো করবে। আমরা লড়াই করার জন্যই দল তৈরি করেছি।

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ...
Top