আজ : মঙ্গলবার, ২২শে মে, ২০১৮ ইং | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

পুলিশি জেরার মুখে শ্রীদেবীর স্বামী


শ্রীদেবীর মৃত্যুকে নিয়ে তৈরি হয়েছে রহস্য। আর এ রহস্য তৈরি করেছে শ্রীদেবীর ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন। গতকাল বেলা ১১টার দিকে পাওয়া প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, আপাতদৃষ্টিতে শ্রীদেবীর মৃত্যু হৃদরোগের কারণে হয়েছে বলে মনে করলেও ময়নাতদন্ত জানাচ্ছে দুর্ঘটনাবশত পানিভর্তি বাথটাবে পড়ে অচেতন হয়ে যান তিনি। ফলে পানিতে ডুবে মৃত্যু ঘটে তাঁর। পাশাপাশি ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে শ্রীদেবীর শরীরে অ্যালকোহলের উপস্থিতিও পাওয়া গেছে। আর এ রহস্য উদ্ঘাটনে দুবাই পুলিশের জেরার মুখে পড়েছেন শ্রীদেবীর স্বামী বনি কাপুর।

ডিএনএ ইন্ডিয়ার সূত্রের খবরে প্রকাশ, দুবাই পুলিশের সমন রয়েছে বনি কাপুরের ওপর। পুলিশের অনুমতি ছাড়া দুবাই ছাড়তে পারবেন না তিনি। এ ছাড়া দুবাই পুলিশ তাঁকে ডেকে নিয়ে গেছে স্থানীয় থানায়। সেখানে জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁরা হোটেলে ফিরে যাওয়ার অনুমতি দেয় বনি কাপুরকে। শ্রীদেবীর ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করেই নতুনভাবে অনুসন্ধান ও জিজ্ঞাসাবাদ আরম্ভ করেছে দুবাই পুলিশ।

মেরিয়াহ এমিরেটস টাওয়ার হোটেলের ২২০১ নম্বর কামরায় মারা যান শ্রীদেবী। খালিজ টাইমসের খবরে প্রকাশ, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বনি জানিয়েছিলেন, শনিবার স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৫টা নাগাদ তিনি মুম্বাই থেকে দুবাই পৌঁছান। বিমানবন্দর থেকে সরাসরি শ্রীদেবীর হোটেলেই পৌঁছেছিলেন তিনি। স্ত্রীর সঙ্গে মিনিট ১৫ আড্ডা দেওয়ার পর ডিনারের প্রস্তাব দেন। আর তাতে রাজি হয়ে যান শ্রীদেবী। ডিনারে যাবেন বলে তৈরি হতে গিয়েছিলেন বাথরুমে। কিন্তু অনেকটা সময় পেরিয়ে গেলেও তিনি বেরিয়ে আসেননি। তখন বনি বাথরুমের দরজা ভেঙে স্ত্রীকে উদ্ধার করেন। অচেতন অবস্থায় শ্রীদেবী নাকি বাথটাবের ভেতরেই পড়ে ছিলেন। ঘরে এনে স্ত্রীর সংজ্ঞা ফেরানোর নানা চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। পরে এক বন্ধুকে ডেকে স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে যান। সেখানে চিকিৎসকরা শ্রীদেবীকে মৃত বলে জানিয়ে দেন।

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ...
Top