আজ : শুক্রবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বাজারে ভয়ংকর প্লাস্টিক চাল, জেনে রাখুন চেনার উপায়


প্লাস্টিক চাল প্রধানত চীনে উৎপাদিত হয়। কিন্তু অসাধু ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ চাল ছড়িয়ে পড়ছে। তাই বাজারে সাধারণ চালের পাশাপাশি প্লাস্টিক চাল থাকার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়া যায় না। না চেনার কারণে হয়তো নিজেই অজান্তেই সেগুলো কিনে নিয়মিত খাচ্ছি। একটু সাবধান হলে প্লাস্টিক চাল চেনা সম্ভব।

এক চামচ চাল এক গ্লাস পানিতে ঢেলে নাড়াচাড়া করুন। উপরে ভেসে উঠলে বুঝবেন সেটি প্লাস্টিক চাল। প্লাস্টিক চাল সরাসরি আগুনে দেয়ার সঙ্গে সঙ্গেই গলে যায়। এভাবেও প্লাস্টিক চাল নির্ণয় করতে পারেন।
প্লাস্টিক চাল রান্না করার সময় অনেকক্ষণ শক্ত থাকে। সাধারণ চালের ক্ষেত্রে তা হয় না।

চাল রান্না করে রেখে দিন। দুই-তিন দিনেও যদি তাতে পরিবর্তন না আসে বুঝবেন সেটি প্লাস্টিকের চাল। একটি পাত্রে তেল গরম করে তাতে চাল ঢেলে দিন। চাল প্লাস্টিক হলে তা পাত্রের তলায় শক্ত হয়ে জমে থাকবে।
================================
দুধ কখন পান করবেন, রাতে নাকি সকালে ?
==============================================
দুধ বেশ উপকারী খাবার। তবে জানেন কি দুধ পানের সঠিক সময় কোনটি? সকালে নাকি রাতে?দুধ থেকে ক্যালসিয়াম ও প্রোটিন পাওয়া যায়। ল্যাকটোজে (দুধের একটি উপাদান) অস্বস্তি না থাকলে দুধ পানে কোনো অসুবিধা নেই। তবে নির্দিষ্ট উপাকারের জন্য নির্দিষ্ট সময় দুধ পান করলে উপকারটি ভালোভাবে পাওয়া যায়।

জীবনধারা বিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের স্বাস্থ্য বিভাগে প্রকাশ হয়েছে এই সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন।

১. সকালের নাস্তায় বেশি প্রোটিন পেতে চাইলে সকালে দুধ পান করতে পারেন। ক্যালসিয়াম, প্রোটিনের বাইরেও দুধে থাকে পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস ও ভিটামিন। নিয়মিত দুধ পান করলে এসব পুষ্টিও পাবেন।

২. সকালে ব্যায়াম করতে চাইলে, সকালে দুধ পান করুন। এতে প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম পাবেন। আপনার হাড় ও পেশির বৃদ্ধির জন্য ক্যালসিয়াম ও প্রোটিন জরুরি।

৩. ঘুমের সমস্যা হলে এবং ভালোভাবে ঘুমাতে চাইলে, রাতে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস গরম দুধ পান করুন। এটি ঘুমাতে সাহায্য করবে।

৪. সারাদিন পরিশ্রমের পর ক্লান্ত লাগলে রাতে দুধ পান করুন। দুধের মধ্যে রয়েছে অ্যামাইনো এসিড। এটি মস্তিষ্কের সেরোটোনিনের হরমোর নিঃসরণে সাহায্য করে। শরীর শিথিল রাখে।

ঠান্ডা দুধের চেয়ে গরম দুধ পান করাই ভালো। গরম দুধ হজমে সাহায্য করে। তবে অতিরিক্ত দুধ পান করবেন না। দিনে ১৫০ থেকে ২০০ মিলিলিটারই যথেষ্ট।

Top