আজ : শনিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

খোলা নাভিতে কেন ঘায়েল হয় পুরুষ?


নারী শরীরের খোলা বিভাজিকায় পথ হারানো পথিক পুরুষের সংখ্যা কম নয়। শরীরের অলি-গলিতে লুকিয়ে আছে হাজারো সম্মোহন আর হাতছানি। অথচ নাভিতে এসেই যেন ভরাডুবি হয় পুরুষ নাবিকের। সিনেমা হোক কিংবা পটচিত্র, বা নিখাদ বাস্তবে নারীশরীরের খোলা নাভির আবেদনে কাত হননি এমন পুরুষ ভূ-ভারতে বিরল। বারমুডা ট্যাঙ্গেলের মতোই যেন নাভিমুলুকের রহস্যও কিন্তু প্রায় অধরা।

শাড়িতে যে নারীকে এত মোহময়ী লাগে তার অন্যতম কারণ কিন্তু এই নাভির প্রদর্শন। তা কেন এত আকর্ষণ জমা হয়ে থাকে নারীশরীরের নাভিতে? কোনও একটা কারণে এর অবশ্য ব্যাখ্যা নেই। পুরনো চিত্রকলাতেও নারীশরীর অঙ্কণের ক্ষেত্রে উন্মুক্ত নাভিকে জায়গা করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু নাভির প্রদর্শনী যে কেন, তা বহুদিন অজ্ঞাতই ছিল। অনেক পরে শরীরবিজ্ঞানীরা খেয়াল করে দেখেন, নারীশরীরে যৌনউত্তেজক স্থানগুলির মধ্যে অন্যতম নাভি ও নাভির চারপাশের অঞ্চল। তাহলে কি প্রাচীনকালের বিজ্ঞানীরাও জানতেন এ কথা? তাই কি পুরনো চিত্রকলাতেও নাভির ঠাঁই! এর একটি যুক্তিগ্রাহ্য ব্যাখ্যা দিয়েছেন লেখক ডেসমন্ড মরিস। চিড়িয়াখানার কেয়ারটেকার ছিলেন তিনি, মানব শরীরের বিবর্তন নিয়ে দীর্ঘ গবেষণাও করেছেন। তাঁর ব্যাখ্যা অনুযায়ী, চোখের দেখায় যোনির সঙ্গে সাদৃশ্যই নাভিকে পুরুষের চোখে আকর্ষণীয় করে তুলেছে। নাভির আকৃতি গোলাকার হলেও, তা আড়াআড়িভাবে দ্বিধাভক্ত থাকে। এই আকৃতি অনেকটাই যোনির মতো। ঠিক যেমন চারপেয়ে থেকে দ্বিপদ হওয়ার পথে নিতম্বের প্রতিনিধি হয়ে উঠেছিল স্তন, ঠিক যেমন ঠোঁট যোনির বাহ্যিক প্রতিনিধি হিসেবে পরিগণিত হয়, সেভাবেই নাভিও নারীশরীরের গোপনঅঙ্গকে যেন প্রকাশ্যে মেলে ধরার প্রতিনিধি।

হেলসিঙ্কি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপকের মতে, নাভি ফার্টিলিটিরও ইঙ্গিত দেয়। তাঁর গবেষণা অনুযায়ী একদিকে যেমন নাভি যৌনকাঙ্খা প্রকাশ করে, অন্যদিকে ফার্টিলিটি সম্পর্কেও ধারণা দেয়। শরীরের মাঝামাঝি নাভির অবস্থান নাকি সুস্থ সন্তান জন্ম দেওয়ার সম্ভাবনার কথাও জানায় বলে তাঁর দাবি।

এরকমই নানা কারণের সমাবেশে নাভিঅঞ্চল হয়ে উঠেছে রহস্যময়। সেক্স ড্রাইভে পুরুষ-তরীর স্বচ্ছন্দ গমন তাই এখানে এসে থমকাবেই, তা সে সিনেমার পর্দায় হোক কিংবা বাস্তবে।

Top