আজ : শনিবার, ১৬ই ডিসেম্বর ২০১৭ ইং | ২রা পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

জামায়াত নেতাদের ৫ দিন করে রিমান্ড মন্জুর !


সকল নিউজ আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারি জেনারেল ডা: শফিকুর রহমানসহ দলটির আটক আটজনের প্রত্যেককে পাঁচ দিনের করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। আজ মঙ্গলবার পুলিশ তাদের রিমান্ড চাইলে আদালত এই সিদ্ধান্ত দেন।

পুলিশ সোমবার রাতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারি জেনারেল ডা: শফিকুর রহমানসহ তাদেরকে আটক করে।
আটক অন্যরা হলেন নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার, চট্টগ্রাম মহানগরী আমির মো: শাহজাহান, চট্টগ্রাম মহানগরী সেক্রেটারি নজরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আমির জাফর সাদেক, সেক্রেটারি জেনারেলের ব্যক্তিগত সহকারী নজরুল ইসলাম এবং বাড়ির মালিক নওশের। অপর ব্যক্তি বাড়িটির নিরাপত্তারক্ষী বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাত ৯টার দিকে রাজধানীর উত্তরার ৬ নম্বর সেক্টরের একটি বাসায় যৌথ অভিযান চালায় ডিবি ও উত্তরা (পশ্চিম) থানা পুলিশ। এরপরই ওই বাসা থেকে জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ ৯ নেতাকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য, জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে ভারপ্রাপ্ত আমির হিসেবে মকবুল আহমাদ দায়িত্ব পালন করছিলেন। দলের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ গ্রেফতার হওয়ার পর কিছুদিন এ টি এম আজহারুল ইসলাম ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেলের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে ডা: শফিকুর রহমান ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন।
সম্প্রতি দলটির আমির ও সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে তারা উভয়েই পূর্ণাঙ্গ দায়িত্বপ্রাপ্ত হন।

প্রতিবাদ : দলের আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার, সেক্রেটারি জেনারেল ডা: শফিকুর রহমানসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান এক বিবৃতি দিয়েছেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী একটি নিয়মতান্ত্রিক, গণতান্ত্রিক, আইনানুগ রাজনৈতিক দল। জামায়াতে ইসলামী তার দলীয় কর্মসূচি পরিচালনায় দেশের আইন, সংবিধান ও প্রচলিত নিয়ম অনুসরণ করে চলে। গতকাল সন্ধ্যায় দলের আমিরের নেতৃত্বে ঘরোয়া বৈঠক চলাকালে পুলিশ অন্যায়ভাবে দলের আমিরসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতার করে। আমরা সরকারের এ অন্যায় ও ন্যক্কারজনক ভূমিকার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, এ সরকার মতায় আসার পর থেকেই জামায়াতকে নেতৃত্বশূন্য করার জন্য পরিকল্পিতভাবে জামায়াত নেতৃবৃন্দকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে বিচারের নামে ফাঁসি দিয়ে হত্যা করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় জামায়াত নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতার করা হলো। আমি স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, জামায়াত নেতৃবৃন্দকে আটক করে দলের অগ্রগতি স্তব্ধ করা যাবে না। তিনি অবিলম্বে আমিরে জামায়াতসহ গ্রেফতারকৃত সব নেতার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।

আরও পড়ুন...
Top