আজ : রবিবার, ১৭ই ডিসেম্বর ২০১৭ ইং | ৩রা পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

আসছে! জামাত পরিচালিত, বিএনপি প্রযোজিত


সকল নিউজ আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

দীর্ঘদিন পর বাংলাদেশে কাল (বৃহস্পতিবার) হরতাল ডাকা হয়েছে। এই হরতাল জামাত ডাকলেও এর প্রধান পৃষ্ঠপোষক বিএনপি। হরতালের পরিচালক জামাত আর প্রযোজক বিএনপি। মূলত: আন্দোলনের টেস্ট কেস হিসেবে বিএনপি জামাতকে গিনিপিগ হিসেবে ব্যবহার করছে। লন্ডন থেকেই পরিচালিত হচ্ছে বিএনপি। আগামীতে সরকার বিরোধী নতুন আন্দোলন করতে চায় বিএনপি। সেই আন্দোলন যেন ২০১৩-১৪ এর চেয়েও সহিংস হয় সেজন্যই পরিকল্পনা করা হচ্ছে লন্ডন থেকে। সেরকম সহিংস একটি আন্দোলন সরকার কীভাবে মোকাবেলা করে, তারই এক রিহার্সেল হবে ১২ অক্টোবরের হরতাল। হরতালের জন্য টাকা পয়সা এবং বিভিন্ন রসদ জুগিয়েছে বিএনপি,আরও নির্দিষ্ট করে বললে তারেক জিয়ার ঘনিষ্ঠরা। তারেক জিয়ার পরিকল্পনা হলো নির্বাচনের আগে দেশকে সহিংস করে তোলা। আর তার প্রস্তুতি শুরু হচ্ছে এই হরতাল থেকেই।

গত রোববার জামাতের আমির সহ শীর্ষনেতা উত্তরায় বৈঠক করতে গেলে গ্রেপ্তার হন। পরে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নেওয়া হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ছিলেন জামাতের আমির এবং সেক্রেটারি জেনারেল। এর প্রতিবাদে জামাত বিক্ষোভ সমাবেশ করার পরিকল্পনা করেছিল। এর মধ্যেই বিএনপির পক্ষ থেকে জামাতের ভারপ্রাপ্ত নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তাঁদেরকে বিক্ষোভের বদলে হরতালের পরামর্শ দেন। সাংগঠনিক এবং অস্তীত্বের তীব্র সংকটে থাকা জামাত এই মুহূর্তে হরতালে অনিচ্ছা প্রকাশ করে। কিন্তু শেষ পযর্ন্ত চাপাচাপি এবং নিজেদের ২০দলীয় জোটে থাকার স্বার্থে বৃহস্পতিবার হরতাল ডেকেছে। বিএনপি জামাতকে গিনিপিগ বানিয়ে দেখতে চায় হরতালে সরকার কি করে। বিএনপি নতুন করে আন্দোলনে যাবার চেষ্টা করছে। যদিও এই চিন্তায় বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সায় নেই। কিন্তু তারেক জিয়া সহিংস আন্দোলনের পক্ষে। যদি সিনিয়র নেতারা আন্দোলনে না যায়, তাহলে তারেক তাঁর অনুগতদের দিয়ে জঙ্গি আন্দোলন করা ইঙ্গিত দিয়েছে। সেই আন্দোলনের কৌশল নির্ধারণে জামাতের হরতাল একটি টেস্ট। যদিও ভঙ্গুর জামাতের আন্দোলনের ক্ষমতা নেই, তারপরও গোয়েন্দারা কিছু নাশকতা ও সন্ত্রাসের আশঙ্কা করছে। হার্ডলাইনে থাকা বিএনপির তারেকপন্থী অংশ এই হরতালকে সমর্থন করছে।

২০১৪ সালে লাগাতার অবরোধের নামে জ্বালাও পোড়াও কর্মসূচি গ্রহন করে বিএনপি। মানুষ নিজেরাই বেরিয়ে অবরোধকে নাকচ করে দেয়। এরপর থেকে দেশে টুকটাক দু-একটা হরতাল হলেও সাধারণ মানুষ তাতে সাড়া দেয়নি।

আরও পড়ুন...
Top