আজ : মঙ্গলবার, ১৯শে জুন, ২০১৮ ইং | ৫ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আসছে দণ্ডিত যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্তের বিল


দণ্ডিত যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার বিল সংসদের পরবর্তী অধিবেশনেই উঠবে। এমনটাই জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। ইতোমধ্যে আইনের খসড়া চূড়ান্ত করেছে আইন মন্ত্রণালয়। সরকারের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবীর বলেছেন, যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সম্পদও এই আইন বলে বাজেয়াপ্ত করার বিধান থাকা উচিত।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের বিরোধিতা করে একাত্তরে সরাসরি হানাদার পাকিস্তানি বাহিনীর সহযোগী হয়েছিল জামায়াতে ইসলামী। পাকিস্তানি সেনাদের পাশাপাশি জামায়াতের গড়া রাজাকার আলবদর বাহিনী মুক্তিকামী নিরীহ মানুষের উপর চালায় হত্যা নির্যাতন। স্বাধীনতার পর নিষিদ্ধ হলেও, পঁচাত্তরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর আবারো এদেশে রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত হয় যুদ্ধাপরাধীরা। নামে বেনামে সম্পদের পাহাড় গড়ে তারা।

মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার শুরুর পর থেকেই এসব জামায়াতে ইসলামী ও যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার দাবি ওঠে। তবে আজো হয়নি আইন। এখন সেই আইনটি চূড়ান্ত পর্যায়ে বলে জানালেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

আইন প্রনয়নের এই অগ্রগতিতে সন্তোষ জানিয়েছে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। নির্মুল কমিটির দাবি ছিলো যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে ট্রাস্ট গঠন করা। যার মাধ্যমে অসহায় ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার পরিবার, বীরাঙ্গনাসহ মুক্তিযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাড়ানো যায়।

এদিকে, জামাতের নিবন্ধন বাতিলের বিষয়েও আইনি প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে বলে জানা গেছে।

Top