আজ : রবিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ভালোবাসা দিবসে কন্ডম বিক্রির ধুম


একটা জীবন মানে একটা গল্প,একটা মন মানে একটা ভালোবাসার মন্দির। একটা প্রেম মানে একটা সোনালি স্বপ্ন। শুধু তাই না, ভালোবাসা নাকি স্বর্গ থেকে এসে নারী পুরুষের মনের স্থান দখল করে নেয়। সেই কথা আমরা সবাই জানি,মানব সৃষ্টির রহস্যের প্রথম পুরুষ আদম ও নারী হাওয়া ; একজন অপরজনকে কাছে পেতে সবসময় অস্থির ছিলো। আসলেই কেমন যেন ভালোবাসা জিনিসটা রহস্যে ঘেরা একটা মন্ত্র-তন্ত্র।

প্রসঙ্গে আসি,আমার এ লেখাটা এতো খোলামেলা ভাবে লিখবো কিনা তা প্রায় ১৯ ঘন্টা মাথার মধ্যে ঘুরপাক খাচ্ছিল :এগুলোতো সবাই জানে,তারপরেও ভাবলাম সমাজকে মনে করিয়ে দেওয়া উচিৎ ভালোবাসা দিবসে ভালোবাসার নামে সমাজে কি হয়!!! ১৩.০২.২০১৮ ইংরেজি তারিখ সন্ধ্যায় মায়ের জন্য অষুধ কিনতে কাশিপুর বাজারের একটি ফার্মেসিতে যাই। এক ফাঁকে খেয়াল করেছি ওষুধ বিক্রেতার কাছে কিছুক্ষন পর পর কিশোর-যুবক বয়সী ছেলেরা এসে চুপচাপ ভাবে প্যাকেটে করে কি যেন কিনে নিচ্ছে। বিষয়টি নজরে আসলে একটু কৌশল অবলম্বন করলে,পরক্ষনের ক্রেতার দিকে দৃষ্টি দিলে দেখা মেলে প্যানথার ও যৌন উত্তেজক ট্যাবলয়েট বিক্রি হচ্ছে। বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে একটা সিগারেট হাতে নিয়ে ফার্মেসির পাশ ঘেশে দাড়াই । সে সময় মেলে যত ভয়ংকর সব তথ্য। ফার্মেসি ম্যান তার এক বন্ধুর সাতে বলছে,কাল ভালোবাসা দিবস তাই প্যানথার বিক্রি হচ্ছে প্রচুর পরিমাণে। দুই ঘন্টায় নাকি ৫০ প্যাকেটেরও বেশি বিক্রি করেছেন। ফার্মেসি ম্যানের কথা শুনে অবাক হয়ে যাই। নিজের কাজ শেষ করে আমার কাছের বেশ কিছু সোর্সকে দায়িত্ব দেই ভালোবাসা দিবসে ফার্মেসিতে প্যানথার ও যৌন উত্তেজক ট্যাবলয়েট বিক্রির তথ্য জানার জন্য। তারাও জানান নগরীর অলি-গলির ফার্মেসিগুলোতে ব্যাপক ভাবে প্যানথার বিক্রি হচ্ছে। পরে কথা বলি সাকিল (ছদ্ম নাম) নামে এক প্রেমিকের সঙ্গে । তিনি খোলামেলা ভাবে জানান “ তার প্রেমিকাকে নাকি তিনি অনেক কষ্টে রাজি করিয়েছেন,তারা দুজনে ১৪ই ফেব্রুয়ারী সুযোগ ঝুঝে সেক্স এন্টারটেইনমেন্ট করবে”। স্বাভাবিক ভাবেই ওই কিশোর প্রেমিকের কথা শুনে আপনার মনেও প্রশ্ন উঠবে তাহলে প্রেমিকরা কি প্যানথার কিনেছে ভালোবাসা দিবসের সেক্স উৎসবের জন্য? তাহলে সেই প্রেমিকারা কারা? অবশ্যই কারো বোন অথবা কন্যা!! প্রেম ভালোবাসার ঘেরাটোপে পরে ওরা যেন নারীর ; অহংকার-ইজ্জত কেড়ে নিতে না পারে,সেদিকে খেয়াল রাখুন সবাই। এক্ষেত্রে অভিবাবক ও প্রসাষনের ভুমিকা রাখা জরুরী।

বরিশাল পিপলস ডট কম

Top