আজ : সোমবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সন্ধ্যে হলেই যৌ’নকর্মীদের খদ্দের আসে আর … ?


দিন দিন নতুন নতুন বিপদের নাম শোনা যায় দীঘাতে। বাঙালিদের প্রিয় এই দীঘাতে কখনো মদনিয়ে কেলেঙ্কারি তো কখনো রাজ্যের নতুন নতুন নিয়ম নিয়ে প্রায়ই কিছুনা কিছু লেগেই থাকে। এবার শুরু হলো আরেক কান্ড। দিনের আলো নিভতে না নিভতেই যেন দিঘার নতুন রূপ দেখতে পাচ্ছেন পর্যটকেরা। পুরো সমুদ্রনগরী জুড়ে শুরু হয়েছে যৌনকর্মীরূপে বৃহন্নলাদের দাপট। সন্ধ্যে নেমে এলেই ওল্ড এবং নিউ দিঘার মোর এবং গলিগুলি জুড়ে দাঁড়িয়ে থাকেন ছোট্ট পোশাক পরিহিতা বৃহন্নলারা।

অন্ধকার রাস্তায় কোনো যুবক পর্যটককে দেখলেই নানাধরণের যৌন ইঙ্গিত দিতে শুরু করেন, নোংরা ভাবে আওয়াজ করেন। এমনকি কাছে চলে এসে তাদের রেট নিয়ে দরদারিও করেন। এছাড়াও গভীর রাতে দিঘা স্টেশনের সামনে বা অমরাবতী পার্কের সামনে ছোট্ট পোশাক পরে দাঁড়িয়ে থাকে তারা। সঠিক স্থানে পৌঁছে দেবার নাম করে চলন্ত গাড়ি থামানোর চেষ্টা করেন। গাড়িতে তুলে নিয়েই পর্যটকদের যৌন চাহিদা মেটাতে নানাধরণের কুরুচিকর অঙ্গভঙ্গি করতে থাকেন। এমনটাই অভিযোগ করেছেন বেশ কিছু পর্যটক।

তাদের দাপটে সন্ধের পর পরিবার নিয়ে বা কারোর সঙ্গেই বেরোতে চাইছেন না পর্যটকেরা। স্থানীয় সূত্রের খবর অনুযায়ী, ঐসব বৃহন্নলাদের দোল এসেছে বাইরে থেকে। দিনের বেলা ট্রেনে বসে বা সমুদ্রসৈকতে পর্যটকদের কাছ থেকে টাকা আদায় করে এবং দিনের আলো নিভলেই ছোট পোশাক পরে যৌনকর্মীরূপে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকে। এর ফলে স্থানীয় ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে পর্যক্তকদের মধ্যেই আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।
পর্যটকদের অভিযোগে পুলিশের পক্ষ থেকে ননজরদারি বাড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য করা ব্যবস্থা নিতে চলেছে প্রশাসন।

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ...
Top